অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রধান দুই দলের অনমনীয় মনোভাব রাজনীতিকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছে - নুরুল কবির

  • সরকার কবীরূদ্দীন

তত্বাবধায়ক সরকার ও নির্বাচন বিষয়ে প্রধান দুই দলের অনমনীয় মনোভাব রাজনীতির বৈরী অবস্থানটাকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছে – বলেছেন ঢাকার দ্য নিউ এইজ পত্রিকার সম্পাদক নুরুল কবির । তিনি বলেন - বাংলাদেশের রাজনীতি , অর্থনীতি , সমাজ-সংষ্কৃতির জন্যে এটা একটা অত্যন্ত দু:সংবাদ । প্রধানমন্ত্রী যখন নতুন দফায় সংবিধান প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহন করেন, তখন থেকেই এটা পরিস্কার হয়ে গিয়েছিলো যে বর্তমান ক্ষমাতসীন সরকার কোনো নির্দলিয় তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চান না । বি এন পির তরফেও বলা হয়েছিলো তত্ববধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া তাঁরা নির্বাচন করবেন না । বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ ফুরিয়ে যাচ্ছে – কিছুদিনের ভেতরেই নতুন নির্বাচন কমিশন নিয়োগ পাবে এবং এমতাবস্থায় পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত হয়ে উঠছে বলে নুরুল কবির মনে করেন । তবে এহেন পরিস্থিতি দু’পক্ষকেই একটা দর কষাকষির পয়েন্টে নিয়ে হাজির করেছে এবং এখান থেকে দু’ দল যদি সংলাপের মধ্যে দিয়ে অভিন্ন একটা অবস্থানে পৌঁছুতে না পারে, তাহলে স্বভাবতই অতীত ইতিহাসের মতোই বিষয়টি দূর্ভাগ্যজনকভাবে রাস্তায় নিস্পত্তি হবে – কোন দল কার ওপরে কতোখানি শক্তি প্রয়োগ করতে পারবে, তার ওপর ভিত্তি করে নুরূল কবির বলেন গত ক’বছর বি এন পি অথবা মতাদর্শি মনোভাবাপন্নদের প্রতি আওয়ামি লীগ সরকার খুব একটা গণতান্ত্রিক আচরন করেছেন , তেমনটি মনে করবার খুব একটা সুযোগ আছে বলে তিনি মনে করেন না । ইদানিং একদিকে যেমন বি এন পি’র গন সমর্থনের বুনিয়াদ পোক্ত হচ্ছে – অন্যদিকে তেমনি আওয়ামি লীগ সেখানে জন সমর্থন খোয়াচ্ছে । নুরুল কবির বলেন সংসদীয় গণতন্ত্রে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্যে রূলস অফ দ্য গেইমস নির্ধারনে বি এন পি – আওয়ামি লীগই , দু’ দলই ব্যর্থ হয়েছে বলেই বর্তমানের মতো এই সংকটা দেখা দিচ্ছে । প্রধানমন্ত্রী যে চোর বাটপারদের সঙ্গে সংলাপে বসবেন না বলে উল্লেখ করেন নিউ ইয়র্কে – তার সূত্র ধরে নিউ ইজ সম্পাদক নুরুল কবির বলেন – বাংলাদেশে ওয়াকিবহাল মহল ভালো করেই জানেন যে বাংলাদেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর যারাই ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে তাদের মধ্যে এমোন কোনো দল নাই যাদের বিরুদ্ধে চুরি বাটপারির অভিযোগ ছিলো না ।বাংলাদেশের রাজনীতিতে সাংঘর্ষিক অবস্থা দেখা দিতে চলেছে বলে মনে হচ্ছে ।

XS
SM
MD
LG