অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অধুনালুপ্ত সিরীয় বিদ্রোহী গোষ্ঠি নুসরা ফ্রন্টের একজন মুখপাত্র তাদের সংগঠনের নতুন নামকরণের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন। আলেপ্পোতে একটি বৃটিশ টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে দাবি করা হয়েছে আসাদের সরকার উৎখাতে যুদ্ধরত সকল উপদল ও ফ্রন্টগুলোকে একই পতাকাতলে আনা তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য। এছাড়া তাদের আরেকটি উদ্দেশ্য হলো, আইএস এবং আল কায়েদা থেকে নিজেদের দূরে সরিয়ে পশ্চিমা গণমাধ্যমের সহানুভুতি আদায়ে সচেষ্ট হওয়া।

উল্লেখ্য, গত ২৯শে জুলাই আন্তর্জাতিকভাবে নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদী সংগঠন নুসরা ফ্রন্টের নাম বদলে তারা জাবাত ফাতেহ আল-শ্যাম বা জেএফএস নামে আত্মপ্রকাশ করে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও ইরানের মতো দেশ বলছে, তাদের এই নাম পরিবর্তনের পরেও আগের মনোভাবের কোন পরিবর্তন হবে না। কারন তারা সন্ত্রাসবাদী মতাদর্শ ও ধ্যান-ধারণা পরিহার করেনি।

শেখ মোস্তফা মোহাম্মদ নামের এই জেএফএস মুখপাত্র যিনি অস্ট্রেলিয়ার সিডনীতে শিক্ষা ও বিজ্ঞানে দুইবার স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন। মধ্য ত্রিশের এই যুবকের মূল কাজ হবে পশ্চিমা মিডিয়ার সঙ্গে অবিরাম সংলাপ করা। স্কাই টিভি তাই তাকে জেএফএস এর মোতায়েন করা ‘সব থেকে শক্তিশালী অস্ত্র’ হিসেবে বর্ণনা করেছে।

স্কাই টিভির অ্যালেক্স ক্রফোর্ড আলেপ্পো থেকে জানিয়েছেন, আল কায়েদার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে জেএফএস। এর মাধ্যমে কয়েক ডজন বিদ্রোহী গ্রুপকে একত্রিত করার পরিবেশ তৈরি করেছে। দু’সপ্তাহ না পেরোতেই আলেপ্পোর অবরোধ দুর্বল করে তারা তাদের প্রভাব রণক্ষেত্রে পরিণত করতে পেরেছে।

XS
SM
MD
LG