অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সন্ত্রাসবাদের হোতা ওসামা বিন লাদেন অবশেষে নিহত


পাকিস্তানের অ্যাবটাবাদে ওসামা বিন লাদেনের আবাস স্থলের সামনের অংশ

পাকিস্তানের অ্যাবটাবাদে ওসামা বিন লাদেনের আবাস স্থলের সামনের অংশ

যুক্তরাোষ্ট্রর প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ঘোষণা করেছেন যে বিশ্বে যে সন্ত্রাসীর সন্ধান অভিযান চলছিল সব চেয়ে বেশি , সেই আল ক্বায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে পাকিস্তানের ভেতরে এক বন্দুক যুদ্ধের সময়ে , যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী হত্যা করেছে।

রোববার রাতে সরাসরি জাতীয় টেলিভিশন ভাষণে মি ওবামা এই ঘোষণা করেন। ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর আল ক্বায়দা সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ অক্রমণ চালানোর প্রায় দশ বছর পর এই শীর্ষ সন্ত্রাসীকে হত্যা করা হলো।

যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী পাকিস্তানের পাঞ্জাবের , হাজারা এলাকায় অ্যাবটাবাদে এই অভিযান চালিয়ে সন্ত্রাসবাদের এই হোতাকে হত্যা করে । অ্যাবেটাবাদের এই প্রাঙ্গনটি রাজধানী ইসলামবাদ থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে তুলনামূলক ভাবে অবস্থা সম্পন্ন এলাকায় অবস্থিত এবং উঁচু দেওয়াল ও কাটা তারের বেড়া দিয়ে ঘেরা ছিল।

মি ওবামা বলেন বিন লাদেন কোন মুসলমান নেতা ছিলেন না , ছিলেন মুসলমানদের গণহতাকারী।

প্রেসিডেন্ট বলেন যে পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সাহায্যে বিন লাদেনের অবস্থানের নির্দিষ্ট স্থানটি চিহ্নিত করা হয় এবং কয়েক মাসের গোয়েন্দা সুত্রের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এই অভিযান অনুমোদন করেন। মি ওবামা এই অভিযানকে , আল ক্বায়দাকে পরাস্ত করার ক্ষেত্রে সব চেয়ে বড় পরাজয় বলে মনে করে এবং বিন লাদেনের এই নিহত হওয়াকে , শান্তি ও মানবিক মর্যাদায় বিশ্বাসী মানুষ মাত্রই স্বাগত জানান। প্রেসিডেন্ট বলেছেন , সুবিচার করা হয়েছে।

ওবামা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন যে শুক্রবার মি ওবামা এই অভিযান অনুমোদন করেন। কর্মকর্তারা বলছেন যে ঐ অভিযানে আরো তিন জন নিহত হন , এদের মধ্যে ওসামার এক পুত্র রয়েছে এবং একজন মহিলাও যাকে মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছিল।

মি ওবামা বলেন যে বিন লাদেনের মরদেহ যুক্তরাষ্ট্রের হেফাজতে নেওয়া হয় এবং মরদেহের প্রতি ইসলামি রীতি রেওয়াজ মতই আচরণ করা হচ্ছে। কোন কোন সংবাদমাধ্যম বলছে যে বিন লাদেনের মরদেহ , সমুদ্রে সমাহিত করা হয়েছে , তবে এই খবর এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

XS
SM
MD
LG