অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রেসিডেন্ট ওবামার রাষ্ট্রীয় পরিস্থিতি ব্যাখ্যার ভাষন প্রসঙ্গে


যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মঙ্গলবার রাতে কংগ্রেসের যুগ্ম অধিবেশনে দেওয়া রাষ্ট্রীয় পরিস্থিতি ব্যাখ্যার স্টেইট অফ দ্য য়ুনিয়ন ভাষনে অর্থনৈতিক কর্মসুচী কংগ্রেসিয় মদত ব্যতিরেকেই পুরনকল্পে তিনি আগেভাগেই যেসব প্রত্যয় ব্যক্ত করেন,তা নিয়ে কথা বলতে শুরূ করেছেন চারটি রাজ্যে তাঁর দু’দিন ব্যাপি সফরকালে ।সফর শুরু ওয়াশিংটনের উপকন্ঠে রাজধানী থেকে পনেরো কিলোমিটার দূরের একটি যায়গা থেকে । ওখানে তিনি কর ব্যবস্থার সংষ্কার,কর্ম সংস্থান সৃষ্টি,ন্যুনতম মজুরি বৃদ্ধি, শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সুযোগ সুবিধে আরো উন্নত করা এবং উদ্ভাবনী প্রক্রিয়ার অর্থায়ন নিয়ে তাঁর সঙ্গে একযোগে কাজ করার জন্যে সংসদ বিধায়কদের প্রতি আহ্বান জানান । দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির উল্লেখে তিনি বলেন – মধ্যবিত্তদের সহায়তা প্রদানে – প্রবৃদ্ধির গতি তরান্বিত করতে প্রয়োজনে কংগ্রেসের মদত ছাড়াই তিনি এগিয়ে যাবেন ।
গুরুত্বপূর্ণ পররাষ্ট্র নীতির প্রশ্নে ইরানের পারমানবিক কর্মসূচীর উল্লেখে প্রেসিডেন্ট বলেন – চাপ প্রয়োগের মদতপুস্ট কূটনীতির সহায়তায় এক দশকে এই প্রথম কর্মসূচীর কিছু কিছু অংশকে উল্টোমুখি করা সম্ভব হয়েছে।তিনি বলেন – প্রক্রিয়াকে বিপথগামি করে দেবে এভাবে নতুন কোনো বিধিনিষেধ সংসদ বিধায়করা দেবেন না সেটাই কাম্য।
২ হাজার ১৪ সালে আফগানিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক বাহিনীর পরিকল্পিত প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানের ভবিষ্যত বিষয়ে আফগান সরকারের সঙ্গে কথাবার্তা চলছে।
সেনেট সভায় গত বছর পাশ হয়েছে যে অভিবাসন সংষ্কার সেটি গোটা কংগ্রেসের তরফে অনুমোদন করার জন্যে আহ্বান জানান তিনি ।
প্রেসিডেন্ট ওবামার আমলে অর্থনীতি নিয়ে–বিভিন্ন সময়ে কংগ্রেসে কিছু কিছু টানাপোড়েন নিয়ে অখুশি ভোটারদের দৃষ্টিতে প্রেসিডেন্ট ওবামার কাজের মূল্যায়নে কিছু নিম্ন মাত্রা দেখা গিয়েছে – এ এ্যাপ্রুভাল রেটিং নেমে গিয়েছে ৫০ মাত্রার নিচে । প্রেসিডেন্ট ২ হাজার ১৪ সালে ওটাকেই আবার টেনে ওপরে তোলার চেষ্টা চালাচ্ছেন ।
ইতিমধ্যে,প্রেসিডেন্টের স্টেইট অফ দ্য য়ুনিয়ন ভাষন নিয়ে রেপাবলিকান দলের তরফে মন্তব্য করেছেন প্রতিনিধি পরিষদের সাংসদ ক্যাথী ম্যাকমরিস রজার্স । ওয়াশিংটন রাজ্য থেকে নির্বাচিত কংগ্রেসওম্যান,প্রেসিডেন্ট তাঁর ভাষনে আয়ের যে অসমতার উল্লেখ করেছেন তা নিয়ে কথা বলেন – বলেন,এখন জীবন যেখানে রয়েছে, সেখানকার তুলনায় জীবন কোথায় হওয়াটা কাম্য – এ দুয়ের মধ্যে ফারাক রয়েছে প্রেসিডেন্টের শাসনামলে। বলেন রেপাবলিকানরা চায় মানুষের কর কম হোক- আয়ের অর্থ রয়ে যাক তাঁদের হাতে আরো বেশি করে – জ্বালানীর জন্যে , স্বাস্থ পরিচর্যার জন্যে ব্যয় তাঁদেরকে কম করতে হোক কাম্য সেটাই ।
XS
SM
MD
LG