অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ বিরোধী প্রয়াসের বিরুদ্ধে, অরল্যান্ডোর ঘটনা কঠোর হুমকী


যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বহু দেশের সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী প্রয়াসের বিরুদ্ধে, অরল্যান্ডোর গুলির ঘটনা একটি কঠোর হুমকী; যদিও হামলাকারী ওমর মাতিনের সঙ্গে জঙ্গী সংঘঠনের সম্পৃক্ততার প্রমান মেলেনি। বিষয়টি নিয়ে ভয়েস অব আমেরিকার সংবাদদাতাদের তথ্য নিয়ে রিপোর্ট শোনাচ্ছেন সেলিম হোসেন।

এই প্রথমবারের মতো জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিবষদ তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এলজিবিটি শব্দ ব্যাবহার করে তাদের বিরুদ্ধে হিংসাত্বক বিষয় নিয়ে শক্ত ভাষায় সমালোচনা করেছে।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা আরলান্ডোয় সমকামীদের লক্ষ্য করে সংঘঠিত হিংসাত্বক সন্ত্রাসী ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে যাতে ৪৯ জন প্রান হারায় এবং ৫৩ জন আহত হয়”।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ৭০টি সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে রাশিয়া ও মিশরসহ বেশ কয়েকটি দেশের বিবেচনায় এলজিবিটিকে অপরাধী আখ্যা দিয়ে তাদের পক্ষে বিবৃতি দেয়ার বিরোধিতা থাকার পরও নিরাপত্তা পরিবষদ বিবৃতি দিল।

যেমনটি বললেন, জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত সামান্থা পাওয়ার, “নিরাপত্তা পরিষদে অনেক দেশ রয়েছে যারা এলজিবিটিকে অপরাধ হিসাবে গন্য করেন। অনেক সমাজ রয়েছে যেখানে এখনো ২০/৩০ বছর আগে যেমন রক্ষনশীল ছিল তেমনই রয়ে গেছে; এলজিবিটকে তারা গ্রহণ করতে পারে না”।

অরল্যান্ডোর গোলাগুলিতে নিহতদের উদ্দেশ্যে স্টোনওয়াল ইনে অনুষ্ঠিত প্রার্থনা সভায় কথা বলছিলেন সামান্থা পাওয়ার। তিনি বলেন, “আইসিল, এলজিবিটি অধিকার নষ্ট করার জন্য তাদের ওপর যে আত্যাচার করছে- নিরাপত্তা পরিষদের কাছে এসব তুলে ধরছি আমরা। এলজিবিটদের ওপর আইসিলের হামলার কথা তোলা হয়েছে; তবু অনেকেই এর বিরোধীতা করেছে”।

তবে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের মতো জাতিসংঘের অন্যান্য সংস্থা, লিঙ্গ ভিত্তিক সম্প্রদায়ের ওপর হামলাকে মানবাধিকার লংঘন হিসাবে বিবেচনা করেছে। ২০১১ সালের জুনে জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদ এর পক্ষে প্রস্তাব দেয়; এবং সারা বিশ্বে তা বন্ধে পর্যাপ্ত ব্যাবস্থা গ্রহনের পরামর্শ দেয়।

২০১৪ সালে জাতিসংঘ তার সদস্যদের মধ্যে সমকামী সুবিধার বিষয় নিশ্চিত করে; যদিও রাশিয়া, সৌদী আরব, চীন, ইরান ও মিশর সহ ৪৩ টি সদস্য রাষ্ট্র তা আটকে দেয়ার চেষ্টা করেছিল।

সমকামী বিষয় নিয়ে জাতিসংঘের নিতিমালা সংস্কারে রাশিয়া, চীনসহ মুসলিম রাষ্ট্রসমূহ প্রতিবারই বাধা দিয়ে আসছে। গতক মাসেই এ এইডস বিষয়ে জাতিসংঘের এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে ১১টি সমকামী সংগঠনের অংশগ্রহনে বাধা দেয় Organization of Islamic Cooperation (OIC)সহ ৫৭টি মুসলিম সদস্য রাষ্ট্র।

এখন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতিতে এলজিবিটি শব্দটি অন্তর্ভুক্ত করা, খুব ছোট হলেও জাতিসংঘ কর্মকান্ডে এই অন্তর্ভুক্তি একটি গুরুত্বপূর্ন ঘটনা; যার সঙ্গে জড়িত মানবাধিকার লংঘনের বিষয়টি।

বলছিলেন সামান্থা পাওয়ার, “এর আগে পর্যন্ত নিরাপত্তা পরিষদ এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে পারেনি। আজ এলজিবিটির পাক্ষে বিবৃতি দেয়াটা; একটি ছোট বিষয় হলেও, ঐতিহসিক পদক্ষেপ”।

সামান্থা পাওয়ার বলেন, আবারো আমরা দেখছি যেভাবে আমরা আইসিলকে দমন করছি তেমনি মানবাধিকারের পক্ষে আমরা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছি; একত্রিত হচ্ছি শান্তি ও নিরাপত্তার পক্ষে।

রবিবারের গোলাগুলিতে নিহতদের প্রতি সম্মান জানাতে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বৃহস্পতিবার আরলান্ডো যাবেন। ওই ঘটনাকে তিনি সন্ত্রাসি ও বিদ্বেষপূর্ন আখ্যা দেন।

এফবিআই পরিচালক জেমস কোমে সোমবার বলেছেন ২৯ বছর বয়সি ঘাতক ওমর মাতিন জিহাদিস্টদের প্রতি দুর্বলতা দেখিয়েছে; তবে চরমপন্থী বা জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার কোনো প্রমান এখনো মেলেনি। এফবিআই পরিচালক ধারনা করছেন সে ইন্টারনেটের মাধ্যমে জঙ্গীবাদের আদর্শে উজ্জিবিত হয়ে থাকতে পারে।

জেমস কোমে বলেন, “আবারো বলছি তার সম্পর্কে বলার মতো সময় এখনো হয়নি। আমরা হত্যাকারী, তার উদ্দশ্যে এবং এটা ঘটাতে তার প্রেরণার উৎস সম্পর্কে জানতে কাজ করে চলেছি। আামরা বিশ্বাস করি সে জঙ্গীবাদে উদ্বুদ্ধ হয়েছিল। এবং তার কিছুটা হয়ত ইন্টারনেটের মাধ্যমে”।

আফগান অভিবাসি পরিবারের সন্তান, ঘাতক মআতিনকে, যুক্তরাস্ট্রের ইতিহাসের ভয়ংকরতম ওই গনগুলির ঘটনা শুরুর ৩ ঘন্টা পর গুলি করে হত্যা করে পুলিশ।

অধ্যাপক বার্টন বলেন এই হত্যাকান্ডটি গত ডিসেম্বরে ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান বার্নার্ডিনোয় পাকিস্তানি দম্পতির হামলার ঘটনার সঙ্গে মিল রয়েছে যাতে ১৪ জন নিহত হয়েছিলেন।

“ইসলামিক ষ্টেট গোষ্ঠি যেখানেই যা ঘটছে তার দায় স্বীকার করছে। তারা এর মাধ্যমে নিজেদরেক জাহির করার সুযোগ পাচ্ছে ভালোমতো”।

ওদিকে সোমবার রাতে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের বাইরে কাছাকাছি একটি এলাকায় সন্ত্রাসীর হামলায় দুই পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বানার্ড Bernard Cazeneuve ওই ঘটনাকে সন্ত্রাসী আক্রমন বলে মন্তব্য করেছেন। ইসলামিক ষ্টেট ওই ঘটনারও দায় স্বীকার করেছে।

XS
SM
MD
LG