অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অরল্যান্ডো হামলায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সরকারী, ব্যক্তি ও গোষ্ঠিগত সহায়তা


অরল্যান্ডোর সন্ত্রাসী হামলায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি এগিয়ে এসেছেন বিভিন্ন ব্যাক্তি ও গোষ্ঠি। অরল্যান্ডোয় ক্ষতিগ্রস্থদের প্রতি সমবেদনা জানাতে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা অরল্যান্ডো পৌঁছেছেন। ভয়েস অব আমেরিকার বিভিন্ন সংবাদদাতাদের তথ্য নিয়ে রিপোর্ট করছেন সেলিম হোসেন।

রবিবার ভোরে অরল্যান্ডোর পালস নামের সমকামীদের নাইটক্লাবে ল্যাটিন ড্যান্স পার্টিতে অতর্কিত বন্দুক হামলায় ৪৯জন নিহত হন। আহত হন আরো ৫৩ জন। ঘন্টা তিনেক পর পুলিশ হামলাকারী ওমর মতিনকে গুলী করে হত্যা করেন। অরল্যান্ডোর ওই সন্ত্রাসী ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তার লক্ষ্যে শহরের একটি স্টেডিয়ামে সাহায্য কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেখানে স্বেচ্ছাসেবী হয়ে কাজ করবেন ৬০০ সাহায্য কর্মী।

ক্ষতিগ্রস্থ পরবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলার পর বুধবার ফ্লোরিডা গভর্ণর রিক স্কট বলেন, “এটি অবশ্যই সমকামী সম্প্রদায়ের ওপর হামলা ছিল। হামলাটি ছিল হিস্প্যানিক সম্প্রদায়ের ওপর, ছিল অরল্যান্ডোর ওপর হামলা; এ হামলা ছিল আমেরিকার বিরুদ্ধে হামলা”।

সারা বিশ্বে ডিজনী শহর নামে পরিচিত অরল্যান্ডো শহরের মেয়র কার্যালয় থেকে এই সাহয্য কেন্দ্র পরিচালনার খরচ বহন করা হবে। বললেন শহরের মেয়র বাডি ডায়ের: “অমি এটি ঘোষনা করতে পেরে আনন্দিত যে আমরা ৩৬০ কোটি ডলার তহবিল সংগ্রহ করতে পেরেছি যা আরো বাড়বে। ডিজনী ওয়ার্ল্ড ১০ লক্ষ ডলার দিয়েছে। Orlando Magic and DeVos family foundation এবং জোপি মর্গ্যান দিয়েছে ৫ লক্ষ ডলার করে মোট ১০ লক্ষ ডলার”।

অরল্যান্ডো পুলিশ প্রধান জন মিনা সাংবাদিকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন যে সকল পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনার সময় সেখানে ছিলেন তাদেরকে ঘটনা সম্পর্কে তথ্য জানতে জোর না করার, “তাদেরকে তাদের পরিবারের সঙ্গে থাকতে দিন এবং খানিকটা স্বাভাবিক হতে দিন। যেমন আমি বলেছি, তারা তদন্ত সম্পর্কে কথা বলতে পারবে না”।

এই ঘটনার পর বিভিন্ন ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠির ওপর সম্ভাব্য হামলার হুমকীর কথাও বলেন আইন প্রনয়নকারী কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র রন হোপার, “এ ব্যাপারে আমি পরিস্কার করে বলছি- এফবিআইয়ের মূল বিষয় হচ্ছে নাগরিক অধিকার লংঘন এবং এ ধরনের যে কোনো অভিযোগ ধর্ম বর্ণ লিঙ্গ নির্বিশেষে আমরা গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করবো”।

অরল্যান্ডোর দু:উখজনক ঘটনায় নিহতদের শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে কড়া নিরাপত্তা প্রহরায়।

ফ্লোরিডা গভর্ণর রিক স্কট সাহায্য কেন্দ্র সফর করেন। স্বেচ্ছাসেবী লরা বাইত্রাগো বলেন, “এখানে আসতে পরার স্বর্গের মতো। আমাকে লুকাতে হচ্ছে না। আমাকে এমন কিছু দেখতে হচ্ছে না। আমি আমার বান্ধবীকে কাছে রাখতে পারছি”।

মানবাধিকার কর্মী রক্সি স্যান্তিয়াগো বলেন, “কিছু রেস্টুরেন্ট, যারা বলেছিল তারা সমকামীতা সমর্থন করেন না গে লেসবিয়ান বাইসেক্সুয়াল ট্রান্সজেন্ডার সম্প্রদায়কে মানতে চায় না; তারাও এই সাহায্য কেন্দ্রে খাবার পাঠিয়েছে। তারা তাদের হৃদয় দিয়ে অনুভব করতে পেরেছে—এটা ভীষন সুন্দর একটি বিষয়”।

হ্যা-এই ভালবাসার অনুভূতিটা সত্যিই সুন্দর। তবে যে নৃশংশ বর্বর ভয়াবহ হত্যাকান্ডটি ঘটে গেল; তা বিভৎস, অসুন্দর। ওই গুলির ঘটনা আমাদেরকে আবারো মনে করিয়ে দেয় আগ্নেয়াস্ত্র, বিশেষ করে সেমাই-অটোমেটিক রাইফেলের মতো মারাত্মক অস্ত্র কেনাটা এই দেশে যে কারো জন্যে কতোটা সহজ। এর কিছুটা নিয়ন্ত্রন প্রয়োজন; বললেন মানবাধিকার কর্মী রক্সি সান্তিয়াগো।

রক্সি বলেন, “এই বন্দুক সন্ত্রাস, বর্নবাদী অপরাধের বিরুদ্ধে আইন কোথায়? সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন বিষয় যেটি তা হচ্ছে-আমাদেরকে নিজেদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে”।

ফ্লরিডা গভর্ণর রিক স্কট বলেন, “আসুন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সঙ্গে আমরা শোক জানাই। রবিবার থেকে আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলছি; তাদের অবস্থা হৃদয়বিদারক”।

আর সেই হৃদয়বিদারক অবস্থা থেকেই ঘুরে দাঁড়াতে হবে আমাদেরকে। বুধবার রাতে স্থানীয় বারে পালস নাইটক্লাবের কর্মীদের জন্য অর্থ সংগ্রহ করা হয় তাদেরকে সহায়তা করার জন্যে।

XS
SM
MD
LG