অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ওয়াশিংটন ন্যাশনাল ক্যাথিড্রালে এই প্রথম বারের মত শোনা গেল আজানের ধ্ধনি


আমেরিকার রাজধানীতে অবস্থিত, ওয়াশিংটন ন্যাশনাল ক্যাথিড্রালে প্রথম বারের মত অনুষ্ঠিত হল নামাজ। ঐ নামাজে অংশ নেন বৃহত্তর ওয়াশিংটন এলাকার ১০০ জন আমন্ত্রিত মুসলমান।

ওয়াশিংটনে দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রদূত ইব্রাহিম রসূল এবং ক্যাথড্রালের রেভারান জিনা কেম্পবেলের প্রচেষ্টায় অনুষ্ঠিত হয় এই যামাত।

অন্য ধর্মের প্রতি সহমর্মিতা প্রদর্শনের লক্ষ্যে এর আগে অন্যান্য উপাসনালয়ে যেমন গির্জা অথবা ইহুদীদের সেনেগগে নামাজ পড়া হয়েছে কিন্তু রাজধানী ওয়াশিংটনের ন্যাশনাল ক্যাথড্রাল যেখানে রাষ্ট্রিয় পর্যায়ের গুরুত্ব পূর্ণ অনেক অনুষ্ঠান হয়ে থাকে সেখানে মুসলমান সম্প্রদায়ের এই এবং নামাজ এই প্রথম। নামাজ অনুষ্ঠিত হয় ১২:২০ মিনিটে। অতিথিদের মধ্যে মহিলারাও ছিলেন। খবর প্রচার কারার জন্য ছিলেন বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

নিরাপত্তা ব্যাবস্থাও জোরদার করা হয়। সাধারণ মানুষের যাতায়াত ঐ সময় বন্ধ রাখা হয়। অতিথিদের মধ্যে বিভিন্ন দেশের মুসলমানদের মধ্যে রয়েছেন ভার্জিনিয়ার এ্যাডামস সেন্টারের প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট। তারা দুনেই বাংলাদেশী আমেরিকান।

ন্যাশনাল ক্যাথিড্রালসহ এই প্রার্থনার স্পন্সারদের মধ্যে অন্যতম ভার্জেনিয়া রাজ্যের ষ্টার্লিংএর এডামস মসজিদও। রিজওয়ান জাকা এডামস মসজিদের মুখপাত্র। তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বকে দেখাতে চাই যে খৃষ্টান সম্প্রদায়ের সংগে আমাদের পার্টনারশীপের সম্পর্ক এবং তারা আমাদের ধর্মীয় স্বাধীনতাকে সমর্থন করে।

রাষ্ট্রদূত রসুল বলেছেন বিশ্বে, মুসলমান এবং খৃষ্টান্ সম্প্রদায়ের সম্পর্কের ক্ষেত্রে এ এক অপূর্ব মুহুর্ত!

ঐতিহ্যবাহী এই ক্যাথিড্রালেই অনুষ্টিত হয় রাষ্ট্রীয় সনাতনী সব অনুষ্ঠান। আমেরিকার ৩ জন প্রেসিডেন্টদের শেষকৃত্যানুষ্টান হয়েছে এখানেই। অন্তত ৫জন প্রেসিডেণ্ট তাদের অভিষেক অনুষ্ঠানের পর বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠান সভায় যোগ দিয়েছেন এখানে। তাঁরা হলেন - প্রেসিডেন্ট ফ্র্যাংলিন ডি রুজাভেল্ট, রোনাল্ড রেগান, জর্জ HW বুশ, জর্জ W বুশ এবং বারাক ওবামা ।

এই অনুষ্ঠান আমেরিকা তথা বিশ্বপটে সৌভ্রাতৃত্বের উজ্জ্বল স্বাক্ষর হয়ে থাকবে।

XS
SM
MD
LG