অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

২০১৬ সালের প্রেসিডেণ্ট নির্বাচনে ভিড় বাড়ছে প্রার্থীদের


যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন আনুষ্ঠানিক ভাবে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যোগ দিয়েছেন। হিলারি ক্লিন্টনের জন্য ডেমোক্রাটিক পার্টির মনোনয়ন লাভের সম্ভাবনা বেশ ভাল। তবে রিপাবলিকানরা ইতিমধ্যেই সাবেক ফার্স্ট লেডির বিরুদ্ধে সমালোচনায় মুখর হয়ে উঠেছে।

ওদিকে রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়ন লাভের জন্য সেনেটার টেড ক্রুজ এবং সেনেটার র‌্যান্ড পল ইতিমধ্যেই তাদের প্রার্থীত্বের কথা ঘোষণা করেছেন। আর সেনেটর মার্কো রুবিও আজ তার প্রার্থীত্বের কথা ঘোষণা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

এ সম্পর্কে আমাদের সংবাদদাতা মাইকেল বোম্যানের রিপোর্ট সহ সংবাদ কক্ষের অন্যান্য রিপোর্টের ভিত্তিতে শুনুন একটি বিস্তারিত প্রতিবেদন, পড়ছেন শাগুফতা নাসরিন কুইন।

২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। আমেরিকার প্রধান দুটি দল ডেমোক্রাটিক ও রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়ন লাভের আশায় প্রার্থীরা তাদের পার্থীত্বের কথা ঘোষণা করছেন। প্রচার অভিযান শুরু করেছেন।

ডেমোক্রাটিক দলের দুজন সদস্য মেরিল্যান্ড রাজ্যের সাবেক গভর্নর মার্টিন ও ম্যালি এবং সাবেক সেনেটর জিম ওয়েব তাদের পার্থীত্বের কথা বিবেচনা করছেন কিন্তু এখনও কিছু ঘোষণা করেননি। তবে যাকে নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জল্পনা কল্পনা করা হচ্ছে সেই সাবেক ফার্স্ট লেডি হিলারি ক্লিন্টান রবিবার সামাজিক মাধ্যমে ঘোষণা করলেন: আমি প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি।

ওয়েব ভিডিওতে হিলারি ক্লিন্টন সাধারণ নাগরিকদের আশা আকাংখার কথা তুলে ধরেন এবং তাদের জন্য তাঁর কাজ করার আগ্রহের কথা বলেন। “প্রতিদিন আমেরিকানদের প্রয়োজন একজন চ্যাম্পিয়ন, এবং আমি সেই চ্যাম্পিয়ন হতে চাই।”

সাবেক প্রেসিডেণ্ট বিল ক্লিনটন-এর স্ত্রী দেশের অভ্যন্তরিণ ইস্যুগুলোর উপর মনোযোগ দিচ্ছেন। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রথম মেয়াদে হিলারি ক্লিন্টন আমেরিকার শীর্ষ কূটনীতিকের পদে দায়িত্ব পালন করেন। অনেকেই তখনকার কয়েকটি ঘটনার বিষয়ে খতিয়ে দেখবে। যেমন সরকারি কাজকর্মের জন্য তার ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহার এবং লিবিয়ার বেনগাজিতে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসে ২০১২ সালে মারাত্মক হামলার আগে পররাষ্ট্র বিভাগের সিদ্ধান্ত প্রক্রিয়া।

রিপাবলিকানরা ইতিমধ্যেই হিলারি ক্লিনটন-’এর ব্যবস্থাপনার ধারা এবং তার রেকর্ড সম্পর্কে সমালোচনা করা শুরু করেছে। Senator Rand Paul যিনি রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন চাইছেন তাঁর নির্বাচনী বিজ্ঞাপনে বলা হয়: “ ওয়াশিংটনের রাজনৈতিক প্রক্রিযার সবচাইতে নেতিবাচক দিকটির প্রতিফলন ঘটেছে হিলারি ক্লিনটন এর মধ্যে। ক্ষমতার ঔদ্ধত্য, দুর্নীতি এবং তা চাপা দেওয়া, স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সংঘাত, ব্যর্থ নেতৃত্ব এবং তার মর্মান্তিক ফলাফল।

প্রেসিডেণ্ট ওবামা হিলারি ক্লিন্টনের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

“তিনি একজন অসাধারণ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন। তিনি আমার বন্ধু। আমি মনে করি তিনি একজন চমৎকার প্রেসিডেন্ট হবেন।”

রাজনৈতিক বিশ্লেষক চার্লি কুক বলেন: “আমার মনে হয়না ইমেইল অথবা বেনগাজি কঠিন সমস্যা হবে।”

মিঃ কুক আরও বলেন হিলারি ক্লিনটন হচ্ছেন আমেরিকার সবচাইতে সুপরিচিত ব্যক্তিত্বের অন্যতম—তা ভালর জন্যই হোক বা মন্দের জন্যই হোক। যেহেতু এখন পর্যন্ত অন্য কোন ডেমোক্রারাটিক প্রতিদ্বন্দ্বী নেই তাকে একক ভাবে কাজ করতে হবে।

“হিলারি ক্লিনটন কে নিজের বিরুদ্ধেই প্রতুদ্বন্দ্বিতা করতে হবে। তাকে দেখাতে হবে যে একবিংশ শতাব্দিতে তার একটা গুরুত্ব আছে। তাকে বিগত দিনগুলোর চাইতে আরও ভবিষ্যৎমুখী হতে হবে।”

হিলারি ক্লিন্টন এখন নির্বাচনী প্রচার অভিযানের জন্য যাবেন আইওয়াতে। সেখানেই ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের, দলের প্রথম প্রাথমিক ও ককাস নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

সাম্প্রতিক জনমত সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে হিলারি ক্লিন্টন সম্ভাব্য Democratic দলের যে কোন প্রার্থী এবং রিপাবলিকান দলের যে কোন প্রার্থীকে পরাজিত করতে সক্ষম হবেন।

রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী সেনেটর টেড ক্রুজ হিলারি ক্লিন্টনের তীব্র সমালোচনা করেন তার এক বাজ্ঞাপনে।

"আমরা জানি আমরা ঠিক কি প্রত্যাশা করতে পারি? বিগত দিনের ব্যর্থ নীতিমালার প্রতিনিধিত্ব করেন Hillary Clinton। আমেরিকা কি ওবামার তৃতীয় মেয়াদ চায়? না কি আমরা এখন আমেরিকাকে আবার মহান করে তোলার জন্য দৃঢ় রক্ষনশীল নেতৃত্বের জন্য প্রস্তুত আছি?

নির্বাচিত হলে সাবেক ফ্র্স্ট লেডি হিলারি ক্লিনটন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট হবেন।

সেনেটর মার্কো রুবিও আজ তার প্রার্থীত্বের কথা ঘোষণা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

XS
SM
MD
LG