অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে পুলিশ বলছে যে তারা রানা ভবনের মালিক সোহেল রানাকে আটক করেছে , সীমান্ত অঞ্চল থেকে। বুধবার ভবনটি ভেঙ্গে পড়ার পর থেকে রানা পলাতক ছিলেন । ঐ ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩৭৭ জন নিহত হয়েছে। এরই মধ্যে কর্তৃপক্ষ দুটি পোশাক কারখানার মালিক , এবং দু জন প্রকৌশলকেও আটক করে পুলিশি রিম্যান্ডে নিয়েছে। এ পর্যন্ত কর্তৃপক্ষ এই ভবন বিধ্বস্ত হবার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে মোট সাতজনকে আটক করেছে।

পুলিশ বলছে যে রানা এবং কারখানার ম্যানেজাররা ঐ ভবন খালি করার ব্যপারে সরকারী সতর্কবার্তা অগ্রাহ্য করেন। ঐ ভবনে পরিদর্শকরা ফাটল দেখার পর ঐ সতর্কবার্তাটি দেওয়া হয়।
রোববার ও জরুরী কর্মিরা ধ্বংসাবশেষের ভেতর থেকে প্রাণে বেচে থাকা মানুষজনকে উদ্ধার কাজ অব্যাহত রেখেছেন। এ পর্যন্ত তারা হাতে ধরা যন্ত্রপাতির সাহায্যেই উদ্ধার কাজ চালিয়েছেন তবে কর্মকর্তারা এখন বলছেন যে এবার তারা ক্রেন ব্যবহার করা শুরু করবেন।


বিস্তারিত শুনুন আমাদের ঢাকা সংবাদদাতা আমির খসরুর প্রতিবেদনে :


XS
SM
MD
LG