অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

স্বাধীনতা দিবসের আগে বা পরে কলকাতায় জারি হওয়া কড়া নজরদারি ও সর্তকতার পরিপ্রেক্ষিতেই কলকাতা মহানগরীর বউবাজার থানার চাদনী চকের এক হোটেল থেকে 5 জন এল টি টি ই জঙ্গি গ্রেপ্তার হওয়ার পরই নানান প্রশ্ন জোরালো হয়ে উঠছে কলকাতার নিরাপত্তার প্রশ্নে।

সামরিক ভাবে নিজেদের শক্তিশালী করতেই কি এরাজ্যের মাওবাদীরা এল টিটি ই জঙ্গিদের সংগে সমঝোতা করছে। এমনই সব প্রশ্ন ঘোরা ফেরা করছে গোয়েন্দা আধিকারিকদের মনে....ইতিমধ্যেই দেশের একাধিক গোয়েন্দা এজেন্সি এই ঘটনার তদন্তও শুরু করেছে।

এই গ্রেপ্তারের প্রসঙ্গে কলকাতা পুলিশের এস টি এফের ডিসি অখিলেশ চর্তুবেদি সাংবাদিক দের এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন ধৃতব্যাক্তি দের সংগে মাওবাদী দের যোগসাজশ আছে কিনা খতিয়ে দেখবেন এস টি এফের কর্তা ব্যক্তিরা।

ধৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কলকাতা পুলিশ ইতিমধ্যেই প্রতারনা জালিয়াতি অপরাধ মূলক ষড়যন্ত্র বেআইনি অনুপ্রবেশের অভিযোগ এনেছেন.....ধৃতব্যক্তিদের কলকাতার ব্যঙ্কশাল আদালতে হাজির করানো হলে... আদালত ধৃতব্যক্তিদের 24 শে আগষ্ট পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বলেই রাজ্য প্রশাসন সূত্রের খবর। পরমাশিস ঘোষরায়ের রিপোর্ট:

XS
SM
MD
LG