অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দক্ষিণ কোরিয়ার পুলিশ ঐ নিমজ্জিত ফেরির ক্যাপ্টেইন এবং দু জন নাবিককে আনুষ্ঠানিক ভাবে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে যে তারা ঐ জলযানটি বুধবার নিমজ্জিত হবার সময়ে যাত্রীদের পরিত্যাগ করে চলে যায়।

তদন্তকারীরা অভিযোগ করছেন যে ৬৯ বছর বয়সী ক্যাপ্টেইন, যাত্রীদের রক্ষা করার জন্য তাঁর দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হন। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে , তিনি াণ্রতম প্রথম ব্যক্তি যিনি জাহাজ ত্যাগ করে চলে যান। সেউল নামের ঐ ফেরিটি দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের জিন্দো দ্বীপের অদূরে ৪৭৬ জন যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়।

এর মধ্যে ৩২ জনের নিশ্চিত মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে এবং আরও ২৭০ জনের , যাদের মধ্যে অধিকাংশ্‌ হাই স্কুলের শিক্ষার্থী , কেোন খবর পাওয়া যায়নি। ডুবুরিরা জানালা দিয়ে আরও তিনটি মৃতদেহ দেখতে পেয়েছে কিন্তু তাদের কাছে পৌঁছুতে পারেনি।

৫০০ জনের ও বেশি ডুবুরি ঐ উদ্ধার টিমের সঙ্গে কাজ করছে । অনেকেই অসামরিক স্বেচ্ছা সেবক।

দক্ষিণ কোরিয়ার ইয়নহপ বার্তা সংস্থা বলছে যে সন্দেহ করা হচ্ছে যে ফেরিটি উল্টে যাবার সময়ে , এমন কী যখন বাইরে বেরুনোর পথ ও বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল তখণ ক্যাপ্টেইন যাত্রীদের নিজ নিজ আসনে বসে থাকার নির্দেশ দেন।

পুলিশ গতকাল জানায় যে হাই স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল যিনি ৩২৫ জন শিক্ষার্থিকে নিয়ে ঐ ফেরিতে করে চার দিনের সফরে বেরিয়েছিলেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন।
XS
SM
MD
LG