অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রসূতি মায়ের যত্ন নিন, মাতৃমৃত্যু রোধ করুন


মাসুদ আল মামুন
ঢাকা রিপোর্টিং সেন্টার

সহযোগিতায়– ইউএসএআইডি ও ভয়েস অফ আমেরিকা


“দু;খের সংসারে সুখের কান্দন হইয়া ছিলা
এত দু;খে আমায় তুমি কেন জনম দিলা
মাগো কেন জনম দিলা...”
এই গানটি গেয়েই মায়ের প্রতি তাঁর অনুভূতির কথা জানালেন, মাননীয় সংসদ সদস্য ও প্রখ্যাত কন্ঠশিল্পী মমতাজ, গত ২৮ মে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ‘মায়ের কথা’ অনুষ্ঠানে। গান শেষে উপস্থিত দর্শকশ্রোতাদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন,
“আসলে কি বলবো, যে মায়ের আদর মায়ের ভালবাসা- এটার মত আসলে কোন কিছুরই তুলনা হয় না”।
সত্যিই মায়ের ভালবাসা তুলনাহীন, সন্তান জন্মদানে মায়েদের সর্বোচ্চ ত্যাগ ও সীমাহীন কষ্ট। তাই প্রতি বছর, বিশ্বজুড়ে পালিত হচ্ছে, নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস। এই দিবসটির মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে, নিরাপদ মাতৃত্বকে নারীর অধিকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা এবং মা ও নবজাতকের মৃত্যুহার কমিয়ে আনা। এই দিনটি উপলক্ষে, চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘মায়ের কথা শীর্ষক অনুষ্ঠানটি। এখানে অংশ নিয়েছিলেন, দেশের সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলো যারা স্বাস্থ্য, প্রসূতি মায়ের সেবা ও পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে। কথা হল, সেভ দ্যা চিলড্রেনের এমচিপ প্রজেক্টের অ্যাডভাইজার অফ স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশনের আরেবা পান্নীর সাথে,
“মামণি একটি ইউএসএআইডি অর্থায়নে বাস্তবায়িত নিরাপদ মাতৃত্ব, নবজাতকের যত্ন এবং পরিবার কল্যাণ প্রকল্প। ২০১৩ সালের নিরাপদ মাতৃত্বের থিম হচ্ছে, প্রসূতি মায়ের যত্ন নিন, মাতৃমৃত্যু রোধ করুন। এবং এই দিবসটিকে ঘিরে আমরা হবিগঞ্জে একটি নতুন ইনিশিয়েটিভ হাতে নিয়েছি। গত এক বছরে যেসব মা হবিগঞ্জ ডিস্ট্রিক্টে মারা গেছেন, তাঁদের সবার তথ্য, নাম-ঠিকানা আমরা কালেক্ট করেছি, বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে দেখেছি তাঁদের শিশুরা কেমন আছে, তাঁদের সন্তানরা কেমন আছে”।
২০১০ সালের বাংলাদেশ মাতৃমৃত্যু জরিপে দেখা যায়, প্রতি বছর প্রতি ১ লক্ষ মায়েদের মধে ১৯৪জন মা প্রসবজনিত জটিলতার কারণে মারা যান। সহস্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ২০১৫ সালের মধ্যে মাতৃমৃত্যুহার ৪ ভাগের ৩ ভাগ ও নবজাতকের মৃত্যুহার ৩ ভাগের ২ ভাগ কমিয়ে আনতে হবে। এ লক্ষ্য অর্জনের পথে, আজকের এই মিলনমেলাটি একটি অনন্য সংযোজন।
এ বিষয়ে কথা হলো, এনজেন্ডার হেলথএর ফিস্টুলা কেয়ার প্রজেক্টের প্রোগ্রাম অফিসার ডাঃ ফারহানা আখতারের সাথে।
তিনি বললেন,

“আমাদের এনজেন্ডার হেলথ- বাংলাদেশ মূলত ইউএসএআইডি ফান্ডেদ একটি অর্গানাইজেশন এবং এই এনজেন্ডার হেলথ- বাংলাদেশের কয়েকটি প্রজেক্ট আছে যার মধ্যে মায়ের হাসি প্রজেক্ট অন্যতম। আমাদের মায়ের হাসি প্রজেক্টের মূল লক্ষ্যে হচ্ছে, পরিবার পরিকল্পনার দীর্ঘ মেয়াদী ও স্থায়ী পদ্ধতিগুলোর চাহিদা সৃষ্টি করা এবং তা পূরণ করা”।
এই অনুষ্ঠানে গানে গানে মায়ের কথা স্মরণ করেছেন দেশ বরেণ্য শিল্পীবৃন্দ। তাদের মধ্যে জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী জেমস গাইলেন মাকে নিয়ে তাঁর বিখ্যাত এই গানটি .........“কোথায় আছে কেমন আছে মা”।




XS
SM
MD
LG