অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নেপালের শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে ওয়াশিংটনে একটি আলোচনা অনুষ্ঠিত

  • আনিস আহমেদ

নেপালী কংগ্রেস পার্টির নেতা এবং প্রধানমন্ত্রীর পদপ্রার্থি রামচন্দ্র পেদেল

নেপালী কংগ্রেস পার্টির নেতা এবং প্রধানমন্ত্রীর পদপ্রার্থি রামচন্দ্র পেদেল

দক্ষিণ এশিয়ায় হিমালয়ের কোল ঘেঁষে যে ছোট্ট দেশটি প্রকৃতি ও পর্যটনের জন্যে একটি আদর্শ স্থান , সেই নেপাল রাজনৈতিক চড়াই উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে আজও। নেপালের সেই রাজনৈতিক রূপান্তর সম্পর্কে সম্প্রতি ওয়াশিংটনের School of Advanced International Studies (SAIS) এর উদ্যোগে একটি আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।

SAIS এর এই আলোচনা অনুষ্ঠানে মুল বক্তব্য রাখেন, কমিউস্ট পার্টি অফ নেপালের একজন শীর্ষ নেতা এবং সেখানকার সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী কে পি শর্মা অলি। তিনি নেপালের রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে তাঁর সক্রিয়বাদী ভূমিকার জন্যে কারারুদ্ধ ছিলেন । বর্তমানে তিনি সেখানকার সংবিধান রচনা প্রক্রিয়র সঙ্গে সম্পৃক্ত আছেন। মি শর্মা অলী নেপালের শান্তি প্রক্রিয়া, সংবিধান রচনা এবং রাজনৈতিক রূপান্তরের উপর বিস্তারিত বক্তব্য রাখেন । তিনি তাঁর বক্তব্যের শুরুতেই বলেন যে তিনি দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করেন যে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সঙ্গে পরিপূরক ভাবে আসতে হবে সামাজিক পরিবর্তন এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ।

বস্তুত নেপালের রাজনৈতিক নের্তৃত্ব একটি নতুন সংবিধান রচনার চেষ্টা চালাচ্ছে। মনে করা হচ্ছে যে এই নতুন সংবিধানে সে দেশের বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠির পরস্পর বিরোধী দাবির একটা সমন্বয় সাধন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। মি শর্মা অলি বলেন আইন পরিষদের থিমাটিক কমিটি নতুন সংবিধানের খসড়া তৈরিতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধন করেছে। সব ধরণের কনস্পেট পেপার প্রস্তুত করা হয়েছে এবং এ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তবে অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে মূল যে বিষয়টির নিস্পত্তি করতে হবে সেটি সরকারের ধরণ , নির্বাচনী পদ্ধতি, রাস্ট্রের কাঠামো পুনঃনির্ধারণ এবং ক্ষমতা ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতার কথা।


তিনি আরো বলেন যে তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে , অতীতের বছর গুলিতে সরকার পরিচালনায় সশস্ত্র গোষ্ঠিগুলিকে অনুমতি দিয়ে এবং এতে তারা যে শিক্ষা পেয়েছেন তাতে এই বিষয়টির পুনারাবৃত্তি কাম্য নয় কোন ক্রমেই। নেপালের এই প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও উপপ্রধামন্ত্রী বলেন যে চারবছর আগেও তাকে ওয়াশিংটানে প্রশ্ন করা হয়েছিল যে তিনি কি করে এটা বিশ্বাস করলেন যে চরমপন্থিরা তাঁর কথা মেনে নিয়ে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় অংশ নেবে। । এর উত্তরে তিনি বলেনএটা চরমপন্থিদের শক্তিতে বিশ্বাস করার বিষয় নয়, এটা হচ্ছে গণতান্ত্রিক চর্চার শক্তিতে বিশ্বাস করার বিষয়।

অনুষ্ঠানের শেষের দিকে প্রশ্ন উত্তর পর্বে ভারতীয় মাওপন্থিদের সঙ্গে নেপালের মাওপন্থিদের সম্পর্ক বিষয়ে তিনি বলেন সম্পর্ক একটা নিশ্চয়ই আছে কারণ ভারতে মাওপন্থিদের বিজয়ে নেপালী মাওবাদিরা উল্লসিত বোধ করে এবং সেখানে মাওপন্থিদের মৃত্যুতে তারা শোক প্রকাশ করে। কিন্তু এই আদর্শিক সাযুজ্যের পাশাপাশি প্রয়োগিক কোন সম্পর্ক বিষয়ে তিনি কোন মতামত প্রকাশ করেননি ।


সংশ্লষ্ট

XS
SM
MD
LG