অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্ব ব্রম্ভাণ্ডের সবচেয়ে বড় রহস্য – সবচেয়ে বড় মহাজাগতিক বিস্ময় – ব্ল্যাক হোল বা কৃষ্ণ গহ্বর


কৃষ্ণ গহ্বর

কৃষ্ণ গহ্বর

বিশ্ব ব্রম্ভাণ্ডের সবচেয়ে বড় রহস্য, সবচেয়ে বড় মহাজাগতিক বিস্ময়, ব্ল্যাক হোল বা কৃষ্ণ গহ্বরকে ঘিরে।

পৃথিবীর জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা এই কৃষ্ণ গহ্বর সম্পর্কে এ পর্যন্ত জানতে পেরেছেন সামান্যই। তবে অতি সম্প্রতি যতটা তথ্য উদ্ধারে সক্ষম হয়েছেন – তা যথার্থই অভাবনীয়, সাধারণ চিন্তার বাইরে । ১৯১৫ সালে বিজ্ঞানী এ্যালবার্ট আইনস্টাইন তাঁর এক অনুমান নির্ভর পর্যালোচনায় এই কৃষ্ণ গহ্বরের অস্তিত্ব সম্পর্কে প্রথম সুস্পষ্ট ধারণা দেন, এবং তারপর এই সুদীর্ঘকালের মধ্যে গবেষকরা জানতে পান যে, কৃষ্ণ গহ্বর এতোটাই শক্তিশালী যে, আলো তা ভেদ করতে পারে না – এবং তার প্রচণ্ড অভিকর্ষ শক্তির টানে সব কিছুই সেখানে তলিয়ে যায়।

আমেরিকার পশ্চিমতটের লস এঞ্জেলেস এর ক্যালিফোর্ণিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে জ্যোতির্বিজ্ঞানী আন্দ্রিয়া ঘেজ নতুন কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করে সম্প্রতি যে সব তথ্য লাভ করেছেন তাতে এই কৃষ্ণ গহ্বরকে বলা হয়েছে – প্রচলিত ধারণার লক্ষ গুন বেশি প্রচণ্ড শক্তির “সুপারম্যাসিভ” বা অতি ব্যাপক এক মহাজাগতিক বিস্ময় !

XS
SM
MD
LG