অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তুরস্ক ও পশ্চিমী ত্রাণ সংস্থাগুলোর মধ্যে যে একটা অচল অবস্থা বিরাজ করছে, অনিচ্ছাকৃত ভাবে তার শিকার হয়েছে ২৫ হাজারের বেশি সিরিয়ান অসামরিক লোক।

তুর্কী সরকার শরনার্থীদের প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের আলেপ্পোতে প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের প্রশাসনের হামলার ফলে যে অসামরিক লোকজন পালিয়ে যাচ্ছে তারাই তুরস্কে ঢুকতে চেষ্টা করছে। তুর্কী কর্মকর্তারা বলেন তাদের দেশ যে সংখ্যক সিরিয়ান শরনার্থীকে গ্রহন করতে পারে তারা সেই সীমারেখায় পৌঁছে গেছে।

প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের সরকারকে চাপ দেওয়ার জন্য জাতিসংঘ ও পশ্চিমী ত্রাণ সংস্থাগুলো সীমান্তের ওপারে শরনার্থীদের ত্রাণ সাহায্য দিতে অস্বীকার করছে।

জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেছেন, কয়েকটি ত্রাণ সংস্থা আমাদের কাছে সহায়তা চেয়েছে সদ্য বাস্তুহারা সিরিয়ানদের কাছে সাহায্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য। কিন্তু আমরা তা করিনি। কারণ আমরা তাতে রাজী হলে সম্ভবত তুর্কী শরনার্থীদের প্রবেশ করতে দেবে না।

XS
SM
MD
LG