অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাংবিধানিক আদালতের রায়ে পদত্যাগে বাধ্য হলেন থাইল্যান্ডের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী থাকসীন শিনাওয়াতা

  • VOA Editor


থাইল্যান্ডে ইংলাক শিনাওয়াতাকে পদত্যাগে বাধ্য করেছে দেশটির সাংবিধানিক আদালত বুধবারদিন।সাংবিধানিক আদালতের বিচারক ঐ রায় ঘোষনা করেছেন।
থাইল্যান্ডের তত্বাবধায়ক মন্ত্রীসভা বানিজ্যমন্ত্রী নিওয়াত্থামরং বুনসংফাইসানকে ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত করেছে।
ইংলাক শিনাওয়াতা ছিলেন দেশটির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আগে ব্যবসা করতেন ইংলাক শিনাওয়াতা।রাজনীতিতে তেমন কোনো অভিজ্ঞতা ছিলোনা তাঁর-২ হাজার এগারোর জুলাই মাসে হঠাত করেই,অপ্রত্যাশিতভাবে প্রধানমন্ত্রীর পদে অধিষ্ঠিত হন তিনি।
৪৬ বছর বয়সি এই নারী প্রধানমন্ত্রীকে লাগাতার অভিযোগের ভোগান্তি সইতে হয়েছে-প্রাক্তন প্রধান মন্ত্রী থাকসীন শিনাওয়াতার সহোদরা হিসেবে নিরন্তর তাঁকে শুনতে হয়েছে তিনি নাকি তাঁর ভাইয়ের হাতের পুতুল বৈ কিছু নন।থাকসীন শিনাওয়াতা গদীচ্যুত হয়েছিলেন ২ হাজার ৬ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানে।
প্রকাশ্যে ভাইয়ের কাছ থেকে দূরেই সরে থেকেছেন ইংলাক শিনাওয়াতা-সমালোচকদের অভিযোগের যাথার্থও অস্বীকার করেছেন-বিরোধি পক্ষিয়দের সঙ্গে হাত মেলানোরও চেষ্টা করেছেন নিরন্তর- তারা কিন্তু নিরবচ্ছিন্নভাবে তাঁর প্রভাবের নিন্দেমন্দই করেছে।
মাসের পর মাস তাঁর পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে-সেসবের মুখে তিনি অকুতোভয় থেকেছেন। তারপর আজ বুধবার সাংবিধানিক আদালত রায় দিয়েছে,তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন এই বলে।অভিযোগ - তিনি জাতীয় নিরাপত্তা প্রধানের পদে একজনকে পুন:নিয়োগ দিয়েছেন,ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করে।সরকারী এক কর্মসূচীতে চালের ওপর ভর্তুকি সংশ্লিষ্ট এক দূনর্নীতিরও অভিযোগ ওঠে তাঁর নামে থাইল্যান্ডের দূর্নীতি দমন কমিশনের তরফ থেকে।অভিযোগে বলা হয় ভোট জেতাই ছিলো উদ্দেশ্য এ তত্পরতার আর তাই এটা দূর্নীতি।পৃথক এ মামলায় দোষি সাব্যস্ত হলে রাজনীতি করা তাঁর জন্যে পাঁচ বছর মেয়াদে নিষিদ্ধ হতে পারে।
ঐ চাল ক্রয় ভর্তুকি কর্মসূচির মতো দরিদ্র বান্ধব অর্থনৈতিক কর্ম তত্পরতার বদৌলতে তিনি এবং তাঁর সহোদর দেশটির বহূ এলাকায় জনপ্রিয় বিস্তর, এখনো অব্দি।
XS
SM
MD
LG