অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দক্ষিণ এশিয়ায় ইসলাম ও রাজনীতির নতুন মূল্যায়ন : একটি বিশেষ আলোচনাচক্র

  • আনিস আহমেদ

দক্ষিণ এশিয়ায় ইসলাম ও রাজনীতির নতুন মূল্যায়ন : একটি বিশেষ আলোচনাচক্র

দক্ষিণ এশিয়ায় ইসলাম ও রাজনীতির নতুন মূল্যায়ন : একটি বিশেষ আলোচনাচক্র

সম্প্রতি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ব্র্যাক ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে ঢাকায় , Transcending Binaries: Islam & Politics in South Asia, শীর্ষক দুদিন ব্যাপী একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেই সম্মেলনের আলোকেই ভয়েস অফ আমেরিকার বাংলা বিভাগের এই গোল টেবিল আলোচনায় দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতিতে ইসলামের প্রভাব এবং এর বিভিন্ন মাত্রার উপর আলোকপাত করেন যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটির সরকার ও রাজনীতির অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ড আলী রিয়াজ , ভয়েস অফ আমেরিকার বাংলা বিভাগের শেগুফতাহ নাসরিন কুইন এবং সঞ্চালক আনিস আহমেদ ।

আলোচনায় বলা হয় যে ১১ই সেপ্টেম্বরের ঘটনা ইসলামকে নতুন করে মূল্যায়নের সুযোগ দিয়েছে। এ প্রসঙ্গে হান্টিংটনের সভ্যতার সংঘাত ও বিবেচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে ১১ই সেপ্টেস্বরই একমাত্র কারণ নয় । গোটা বিশ্বেই ধর্মকে রাজনৈতিক একটি আদর্শ হিসেবে ব্যবহারের প্রবণতা ক্রমশই বাড়ছে। তার অন্যতম একটি কারণ হলো অতীতে যাকে ধর্মনিরপেক্ষতা বলা হতো , সেই ধারণায় এখন পরিবর্তন এসছে। তারই পটভুমিতে এক দিকে যেমন বিশ্ব পরিসরে ৯/১১ এর পরবর্তী পরিস্থিতি সেটি গুরুত্বপূর্ণ তেমনি গুরুত্বপূর্ণ দীর্ঘ মেয়াদি কিছু দিক ও। সে জন্যেই বৃহত্তর প্রেক্ষাপটে ধর্ম ও রাজনীতি , বিশেষত ইসলাম ও রাজনীতি বিভিন্ন ভাবে আলোচিত হচ্ছে।

৯/১১ ‘র পর মুসলমানদের মধ্যে একটা বড় রকমের পরিবর্তন এসছে কেবল দক্ষিণ এশিয়ায় নয় , গোটা বিশ্বেই। এগারোই সেপ্টেম্বর একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক কিন্তু এই পরিবর্তন ঐ ঘটনাকেও ছাড়িয়ে গেছে। এর সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় সম্পৃক্ত রয়েছে , যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতি , আফগানিস্তান ও ইরাক যুদ্ধ , এ সবই সম্পৃক্ত। এটা ও প্রশ্ন উঠেছে যে রাজনীতিতে ধর্মকে কি আদর্শ হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে , পারলে কি ভাবে সেটা হতে পারে সে ক্ষেত্রে , যেমন ধরুন , ইসলামের সঙ্গে রাষ্ট্রের , সমাজের , রাজনীতির কি সম্পর্ক হবে সেগুলো নতুন করে আলোচনা করতে হবে।

১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পেছনে ও ধর্ম একটি ভুমিকা পালন করেছে । তবে এ কথা ও সত্যি যে দক্ষিণ এশিযায় ধর্মের ব্যবহার হয়েছে ১৯৪৭ এর আগে , মোগল আমলে , ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলেও কিন্তু এর লক্ষ্য ছিল ধর্ম নয় , ছিল স্বাধীনতার সংগ্রাম ।

আলোচনায় হিজাব ব্যবহারের প্রসঙ্গটিও উঠে আসে এবং বলা হয় যে ঢাকার ঐ সম্মেলনেও এ বিষয় আলোচনা হয়। হিজাবকে কেবল ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে নয় , কোথাও পরিচিতর কারণে কোথাও প্রতিরোধের কারণে , কোথাওবা বাধ্য হয়ে।

XS
SM
MD
LG