অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লন্ডনে এখন দিনরাত ২৪ ঘণ্টা ব্যস্ত রয়েছে একটি ডিজিটাল নির্বাচনী যুদ্ধঘর। যার কাজ হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভোটারদের কাছে বার্তা পৌঁছানো। বৃটিশ কোম্পানী ‘ক্যামব্রিজ এনালিটিকা’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডনাল্ড ট্রাম্পের হয়ে বার্তা পাঠাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তা আলেকজান্ডার নিক্স স্কাই নিউজকে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমানে প্রত্যেক ব্যক্তি সম্পর্কে চার থেকে পাঁচ হাজারের কাছাকাছি ডাটাপয়েন্ট তাদের কাছে রয়েছে। প্রথাগত মডেলে ৫০ মিলিয়ন মানুষ ঢালাও বিজ্ঞাপন পেতো। সেটা পাল্টে দিয়ে ব্যক্তিগতভাবে টার্গেট করে তৈরি করা বিজ্ঞাপন পাঠানো হচ্ছে তাদের কাছে।


এই প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান জরিপ সম্পন্ন করে ফেসবুকে ছেড়ে দেয়। সেখানে হাজার হাজার মানুষ তা পূরণ করে। এরপর মানুষের দেয়া উত্তরের সঙ্গে মিলানো হয় ব্রোকারদের কাছ থেকে কেনা বা লাইসেন্স করা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে নেয়া তথ্য। সবকিছুর সমন্বয়ে মানুষের ব্যক্তিত্বের একটি মডেল তৈরি করা হয়। মিস্টার নিক্স বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ব্যক্তিত্বের মডেল তৈরি করছি আমরা। এরপর গুরুত্বপূর্ণ ভোটারদের ধরণ, তাদের কাছে ফেসবুক বা ব্যানার বিজ্ঞাপনসহ সুনির্দিষ্টভাবে বার্তা পাঠানো হবে তা সনাক্ত করে।


কয়েকজন গবেষক স্কাই নিউজকে বলেন, ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন। তাছাড়া রাজনৈতিক বক্তব্যে ব্যক্তিগতকরণ বার্তার প্রভাব নিয়েও তারা প্রশ্ন তুলেছেন।
উল্লেখ্য যে, ক্যামব্রিজ এনালিটিকা এর আগে টেড ক্রুজের প্রচারণা, ন্যাটো ও বৃটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য কাজ করেছে।




XS
SM
MD
LG