অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ডনাল্ড ট্রাম্পের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তরের প্রস্তুতি; ভোট পূন:গণনার দাবী


যুক্তরাস্ট্রের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে। নতুন প্রশাসনের বিভিন্ন শীর্ষ পদে চলছে নিয়োগের জন্য বাছাই প্রক্রিয়া। এরই মধ্যে ৮ নভেম্বরের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ভোট পূন:গণনার দাবীও উঠেছে।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার স্বাস্থ্য সেবা আইনের কড়া সমালোচক জর্জিয়ার কংগ্রেসম্যান টম প্রাইসকে যুক্তরাস্ট্রের নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ডিপার্টমেন্ট অব হেল্থ এ্যান্ড হিউম্যান সার্ভিসের প্রধান হিসাবে নিয়োগ দেয়ার জন্য ঠিক করেছেন।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ট্রাম্প ওবামাকেয়ার নামের স্বাস্থ্য সেবা আইন বাতিলের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে তখন থেকেই তিনি বলে আসছিলেন ঐ আইনের কিছু ভালো কর্মসূচী রেখে দেয়া হবে।

সোমবার ট্রাম্প পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে সম্ভাব্য এ্রকজন প্রার্থীর সঙ্গে বৈঠক করেন; বৈঠক করেন সাবেক সিআইএ প্রধান ডেভিড পেট্রিয়াসের সঙ্গে। সিআইএর আগে পেট্রিয়াস ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সেনা কমান্ডার এবং আফগানিস্তানে নেটো বাহিনীর নেতৃত্ব দেন।

২০১২ সালে কিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্য ফাঁস ও তার সহকর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক বিষয়ক কেলেংকারীর অভিযোগের পর তাঁকে বাধ্য হয়ে পদত্যাগ করতে হয়। পেট্রিয়াসের এসব অতীত থাকা স্বত্তেও ট্রাম্প টুইটারে বলেন, “ঐ অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল তাঁর পছন্দ”।

পেট্রিয়াস ছাড়াও কয়েকজন রাজনীতিক এবং কুটনীতিক রয়েছেন সম্ভাব্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর জন্য প্রার্থীর তালিকায়। এর মধ্যে রয়েছেন সাবেক নিউইয়র্ক সিটি মেয়র রুডি জুলিয়ানি, জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত জন বল্টন, সেনেট ফরেন রিলেশন্স কমিটির রিপাবলিকান চেয়ারম্যান বব ক্রকার এবং সাবেক ম্যাসাচুসেটস গভর্নর মিট রমনী।

মিট রমনীর প্রার্থীতা নিয়ে ট্রাম্পের সমর্থক এবং দায়িত্ব হস্তান্তরে কর্মরত অন্তবর্তীকালীন দলের মধ্যে বিতর্ক ও প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে।

২০১২ সালের প্রার্থী এবং সাবেক গভর্নর মিট রমনী নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করেছিলেন। তাকে প্রতারক বলেছিলেন এবং পাবলিকলি তাকে সমর্থন জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন।

সোমবার পেট্রিয়াস বলেছেন তিনি ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেছেন এবং ঘন্টাখানেক কথা বলেছেন।

“মূলত তিনি বৈশ্বিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা করেছেন; বলেছেন সারা দুনিয়ায় কতো চ্যালেঞ্জ রয়েছে; রয়েছে নানা সম্ভাবনা এবং সুযোগও। দেখা যাক আমরা কতদূর যেতে পারি”।

শীর্ষ সেনা কমান্ডার হিসাবে দীর্ঘ অভিজ্ঞতা, গোয়েন্দা প্রধান থাকার পরও পেট্রিয়াস কঠিন প্রশ্নের মুখোমুখি হবেন; সেনেটের তরফ থেকে। কারন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে চুড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য সেনেটের অনুমোদন লাগবে।

পেট্রিয়াসের বিরুদ্ধের অভিযোগ স্বিকারের পর তাকে ১ লক্ষ ডলার জরিমানা করা হয়।

ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন এফবিআই হিলারী ক্লিনটনের তদন্তে এবং তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নিতে ব্যার্থ হলেও পেট্রিয়াসকে শাস্তি পেতে হয়েছে।

ওদিকে ৮ই নভেম্বরের নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ ওঠায় ভোট পূন:গননার দাবীব উঠেছে। নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প আবারো তার ভোট কারচুপির অভিযোগ করে বলেছেন পরিস্কারভাবে বড় ব্যাবধানে ইলেক্টোরাল কলেজ জিতেছেন তিনি। দেশব্যাপী পপুলার ভোটেও তিনি জিতবেন যদি লক্ষ লক্ষ অবৈধ ভোট; গননা থেকে বাতিল ধরা হয়।

চার ঘন্টা পর তিনি ভার্জিনিয়া সিউ হ্যাম্পশায়ার ও ক্যালিফোর্নিয়ার ভোটের ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। ঐ রাজ্যগুলোতে তিনি হিলারী ক্লিনটনের কাছে হেরে যান।

সম্প্রতি ট্রাম্প গ্রীন পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জিল স্টেইনের সমালোচনা করছেন; যিনি পরে উইসকনসিন রাজ্যের ভোট পূন:গননার বিষয়ে ক্লিনটনের দাবীর প্রতি সমর্থন দিয়েছিলেন। ঐ রাজ্যে ট্রাম্প সামান্য ব্যাবধানে জিতেছেন।

নির্বাচনের আগে ডনাল্ড ট্রাম্প নিয়মিত বিবৃতি দিতেন যেনো ভোট পদ্ধতিতে কারচুপি না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক হওয়ার জন্যে। তবে তা করার জন্যে ঠিক কি ব্যাবস্থা নেয়া যেতে পারে তার পরিস্কার কোনো পথ কিংবা কিভাবে কারচুপি হতে পারে সে ব্যাপরেও কিছু ষ্পষ্ট করে বলেন নি।

ট্রাম্প বলেছিলেন, “এটি একটি কারচুপির নির্বাচন। বিশ্বাস করুন। আমরা জানি এটি একটি ত্রুটিপূর্ন পদ্ধতি। ১৮ লক্ষ মৃত মানুষ নিবন্ধিত ভোটার”।

ক্লিনটনের নির্বাচনী আইনজ্ঞ মার্ক এলিয়াস টুইটারে এক মন্তব্য বলেছেন, “ট্রাম্পের পক্ষ থেকে আসা সমালোচনার পর আমরা ভোট পূন:গননার অভিযোগ ও দাবী শুনতে পাচ্ছি। আমরা এ দাবী করছি না। যে লোকটি নির্বাচনে জিতেছেন তিনিই অভিযোগ করছেন নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে”।

উইসনকনসিন কিংবা পেনসেলভেনিয়া অথবা মিশিগানে ভোট পূন:গননার দাবী তুলেছেন জিল ষ্টেইনও। যদি তা করা হয়; তবে তা নির্বাচনী ফলাফলে কোনো প্রভাব ফেলবে কিনা তা এখনো পরিস্কার নয়।

পপুলার ভোটে ডেমোক্রটিক দলের প্রার্থী হিলারী ক্লিনটেনর চেয়ে প্রায় ২০ লক্ষ ভোট কম পেয়েও ইলেক্টোরাল কলেজ বা নির্বাচকমন্ডনীর বেশির ভাগ সমর্থন পাওয়ার কারনে রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি দায়িত্ব নেবেন জানুয়ারীতে; আনুষ্ঠানিক অভিষেকের মাধ্যমে।

XS
SM
MD
LG