অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তুরস্কে তিন মাসের জন্য জরুরি অবস্থা জারি


তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান যে তিন মাসের জন্য জরুরি অবস্থ জারি করেছেন, অনুমান করা হচ্ছে আজ সেখানকার বিধায়করা তাতে অনুমোদন দেবেন। এর ফলে গত শুক্রবার তাঁকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেওয়ার লক্ষ্য ব্যর্থ অভুত্থানের পর তার শুদ্ধি অভিযান চালানোর পথ পরিষ্কার হয়ে যাবে।

বুধবার রাতে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে এরদোয়ান বলেন তিন মাসের জন্যে জরুরি অবস্থা বলবৎ করা হচ্ছে। এর আগে দীর্ঘ বৈঠক হয় প্রথমে জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সঙ্গে এবং পরে তাঁর মন্ত্রীপরিষদের সঙ্গে।

এরদোয়ান বলেন, এই জরুরি অবস্থা আরোপের লক্ষ্য হচ্ছে, তাঁর কথায়, “গণতন্ত্র ও আইনের শাসনে ফিরে যেতে সব চেয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সমর্থ হওয়া। তুরস্কের এই নেতা বলেন, এই সময়ে অবশ্য সশস্ত্রবাহিনী দেশের নিয়ন্ত্রণ নেবে না।

বুধবারও এরদোয়ানের শত শত সমর্থক তাঁর প্রতি সমর্থন জানানোর জন্য এবং তুরস্কের নেতা যাকে দ্বিতীয় অভুত্থান প্রচেষ্টা বলছেন তা ঠেকানোর লক্ষ্যে ইস্তাম্বুলের তাকসিম স্কোয়ারে সমবেত হয়। জরুরি অবস্থা ঘোষণার ফলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রে ১৭ বছর ধরে নির্বাসিত ইমাম ফেতুল্লাহ গুলেনের নের্তৃত্বাধীন আধ্যাত্মক আন্দোলনের সমর্থকদের লক্ষ্য করেই ব্যাপক ধরপাকড় হবে। গত শুক্রবার থেকে এ পর্যন্ত নয় হাজারের বেশি লোককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, যাদের মধ্যে ছয় হাজার হচ্ছে সশস্ত্র বাহিনীর লোকজন।

রিচার্ড গ্রীনের রিপোর্ট থেকে বিস্তারিত শোনাচ্ছেন শাগুফতা নাসরিন কুইন।

XS
SM
MD
LG