অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভুতোগলু বৃহস্পতিবার ঘোষণা করেন যে, ক্ষমতাসীন দলের প্রধান হিসেবে দলের আসন্ন মহাসম্মেলনে তিনি পুনঃনির্বাচনে দাঁড়াবেন না। তার মানে হচ্ছে, তিনি এই পদ ছেড়ে দেবেন।

ক্ষমতাসীন জাস্টিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (একেপি) নির্বাহী কমিটির এক বৈঠকের পর দাভুতোগলু, আঙ্কারায় এক সংবাদ সংম্মেলনে বলেন যে দলের একতার জন্য, দলের নেতৃত্বের পরিবর্তন আসা দরকার। দাভুতোগলু অবশ্য বলেন, তাঁর এই পদত্যাগ, তাঁর পছন্দের ব্যাপার নয়, প্রয়োজনের কারণেই এই সরে দাঁড়ানো। তবে তিনি জোর দিয়েই বলেন যে, কারও সম্পর্কে কোন তিক্ত অনুভূতি নিয়ে তিনি যাচ্ছেন না।

দাভুতোগলু আভাস দেন যে তিনি দলে থাকবেন এবং ক্ষমতাসীন দলের বিধায়ক হিসেবে তিনি তাঁর সংগ্রাম অব্যাহত রাখবেন। তিনি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেজেপ তাইয়েব এরদোয়ানের প্রতি তাঁর আনুগত্য প্রকাশ করেন।

দাভুতোগলুর পদত্যাগ এখনই কার্যকর হচ্ছে না। ক্ষমতাসীন দল একেপি নতুন নেতা নির্বাচনের জন্য ২২শে মে একটি জরুরি সভা ডেকেছে। সেই নতুন নেতাই হবেন নতুন প্রধানমন্ত্রী।

তুরস্কের সংবাদ মাধ্যম বলছে, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকের লক্ষে, দাভুতোগলু'র দোসরা মে ওয়াশিংটন সফরে আসার কথা ছিল। কোন কোন সংবাদ মাধ্যম বলছে, এতে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান ক্ষুব্ধ হন এবং এই সফর বাতিল করা হয়। বুধবার এই দুই নেতার মধ্যে বৈঠক হয় কিন্তু তাদের মতপার্থক্য দূর হয়নি।

XS
SM
MD
LG