অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তুরস্কে সরকার বিরোধি বিক্ষোভ ক্রমশ:ই ছড়িয়ে পড়ছে সারা দেশে


তুরস্কে সরকার বিরোধি বিক্ষোভ ক’দিন ধরেই চলছে । প্রথমে কয়েক ডজন লোক , তার পর কয়েক শ’ আর এখন হাজার হাজার । ইস্তাম্বুলের তাকসিন চত্বর আজ সোমবার শান্ত রইলেও – সেখানে এখনো ব্যানার , টুকরো টাকরা প্রতিবন্ধকের খন্ডাংশ পড়ে রয়েছে – আবজর্না স্তুপ হয়ে আছে ,মনে করিয়ে দিচ্ছে বেশ ক’দিনের প্রতিবাদ সমাবেশের কথা । এক দশককাল ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রী রেজেপ তাইয়িপ এরদোয়ানকে এখন স্বৈরশাসক বলে অভিভিত করছেন প্রতিবাদিরা । প্রধানমন্ত্রী প্রতিবাদিদেরকে মুষ্টিমেয় কিছু উগ্রবাদি বলে আখ্যায়িত করছেন । এরদোয়ানের শাসনামলে তুরস্কের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঋদ্ধ হয়েছে – বহির্বিশ্বে তুরস্কের ভাবমুর্তি উজ্জলতর হয়েছে – প্রধানমন্ত্রীর সমর্থনে বিপুল সংখ্যক রক্ষনশীল দেশবাসির উপস্থিতি এরদোয়ান প্রশাসনের কর্মদক্ষতার সাক্ষর বহন করলেও দেশে তাঁকে বিভাজনের উত্সরুপে বিবেচনা করা হচ্ছে কোনো কোনো মহলে । সূরা বিক্রির ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ , সিরিয়ার আসাদ সরকারের বিপক্ষে অবস্থান গ্রহন – এসব কারণে অনেকে নিরাপত্তার প্রশ্নে বিপদের গন্ধ পাচ্ছেন । বিষয়টি নিয়ে বিশ্লেষন করেছেন , পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেছেন নিউ ইয়র্ক প্রবাসী বিশিষ্ট সাংবাদিক / সংবাদ ভাস্যকার সৈয়দ মোহাম্মদউল্লাহ । ভয়েস অফ এ্যামেরিকার বাংলা বিভাগের সঙ্গে কথোকথনের সঙ্গে তাঁর সঙ্গে টেলিফোনের এধানে , ওয়াশিংটন স্টুডিওতে ছিলেন সরকার কবীরূদ্দীন ।
XS
SM
MD
LG