অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নেদারল্যান্ড ভিত্তিক ইউরোপীয় পুলিশ সংস্থা ইউরোপোল তাদের সদ্য প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ইসলামিক স্টেট- আইএস ‘পরবর্তী প্রজন্মের জঙ্গি’ তৈরির লক্ষ্যে বর্তমানে বিদেশি যোদ্ধাদের সন্তানদের সামরিক প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বলে উল্লেখ করেছে।

নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সমগ্র বিশ্বের নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্যই এটা একটা বিশেষ উদ্বেগ ও দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ ধরে নেয়া যায় যে, তারা কখনওবা নিজ দেশে ফিরে যাবে।

এর আগে লন্ডন ভিত্তিক কাউন্টার টেরোরিজম থিঙ্কট্যাঙ্ক কুইলিয়াম ফাউন্ডেশন তাদের এক সমীক্ষা রিপোর্টে বলেছে, প্রায় ৫০ জন বৃটিশ শিশু আইসিসের কথিত খেলাফতের মধ্যে বেড়ে উঠছে। আর সেখানে ৩১ হাজার গর্ভবতী মহিলা রয়েছেন।

এ সংগঠনের সিনিয়র গবেষক নিকিতা মালিক মনে করেন, ঐ সন্ত্রাসী গোষ্ঠি ইরাক ও সিরিয়ায় তাদের রাষ্ট্র গঠনের অনুশীলনের অংশ হিসেবে ‘পরবর্তী প্রজন্মের যোদ্ধা’ তৈরি করছে। নিকিতা মালিক সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এসব শিশুদের অমুসলিমদের ঘৃণা করতে শেখানো হচ্ছে এবং অন্য জগৎ সম্পর্কে তাদের কোন ধারণাই দেয়া হচ্ছে না।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত নতুন ইউরোপোল রিপোর্টে অনুমান করা হয়েছে যে, আইসিস এই শিশুদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে যাতে তারা ভবিষ্যতে যোদ্ধা হতে পারে। তাই তারা একদিন সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জন্য নিরাপত্তা হুমকি হিসেবে দেখা দিতে পারে।

কুইলিয়াম ফাউন্ডেশন এ বছর গোড়ার দিকে যে ভবিষ্যতবানী করেছিলো তা সঠিক বলে প্রমাণিত হয়েছে। ছয় মাসের ব্যবধানে আইসিস ১২ জন শিশুকে জল্লাদ হিসেবে প্রদর্শন এবং একটি শিশুকে প্রকাশ্যে ঘাতক হিসেবে চিত্রিত করেছে। লন্ডন থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী।

XS
SM
MD
LG