অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ত্রিপোলির কাছে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্রদের আক্রমণ ; এর প্রতিক্রিয়া


ত্রিপোলির কাছে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্রদের আক্রমণ ; এর প্রতিক্রিয়া

ত্রিপোলির কাছে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্রদের আক্রমণ ; এর প্রতিক্রিয়া

যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা রাজধানী ত্রিপোলির কাছে লিবিয়ার সরকারি লক্ষ্যস্থলে আরও বিমান আক্রমন চালিয়েছে। জাতিসংঘ অনুমোদিত নো ফ্লাই জোন বাস্তবায়নের জন্য এবং সরকারি আক্রমন থেকে লিবিয়ার অসামরিক জনগনকে রক্ষা করার জন্য।

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সামরিক অফিসার অ্যাডমিরাল মাইক ম্যুলেন বলেন জাতিসংঘ অনুমোদিত নো ফ্লাই জোন বা বিমান উড্ডয়ন নিষিদ্ধ ঘোষণা কার্যকর করার প্রাথমিক তৎরতা ভালই হয়েছে। তিনি বলেন বিমান আক্রমনের ফলে অসামরিক লোকজনের হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি।

লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মর গাদ্দাফি বলেছেন তার দেশ যে পশ্চিমি শক্তি তার সেনাদের উপর ক্ষেপনাস্ত্রের আঘাত হানছে তাদের সঙ্গে তার দেশ দীর্ঘকালীন যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে মি গাদ্দাফি বলেন যুক্তরাষ্ট্র ও ও ইউরোপীয় দেশগুলোর হস্তক্ষেপের কোন ন্যায়সঙ্গত কারণ নেই। তিনি বলেন বিমান আক্রমন সন্ত্রাসবাদেরই সমান। লিবিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলা হয় মিত্রজোটের আক্রমনে ৪৮ জন নিহত হয় এবং আহত হয় ১৫০ জন।

আরব লীগ লিবিয়ায় আন্তর্জাতিক বিমান আক্রমণের নিন্দে করছে। এর ঠিক এক সপ্তা আগই সংগঠনটি লিবিয়ায় নো ফ্লাই জোন তৈরির জন্যে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল। আরব লীগের মহাসচিব আমর মুসা আজ বলেছেন যে লীগটি যে ভাবে চেয়েছিল নো ফ্লাই জোন বাস্তবায়ন , এখন কার পরিস্থিতি সেটা ছাড়িয়ে গেছে।

এ দিকে রুশ পররাষ্ট্র দপ্তর ভ্ন্নি এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে লিবিয়ায় যথেচ্ছ ভাবে বিমান হামলা বন্ধ করতে বলছে। এর আগের কবরে বলা হয় যে লিবিয়ায় পশ্চিমি শক্তির বিমান আক্রমণের বিরোধীতা করছে বেশ কিছু মহল , যাদের মধ্যে রাশিয়া ও চীন এই ব্যবস্থার বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছে , এবং আফ্রিকান ইউনিয়ন এর সমাপ্তি চাইছে।

লিবিয়ার অসামরিক লোকজনকে রক্ষা করতে এবং অস্ত্র বিরতি কার্যকর করতে সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণের অনুমোদন দিয়ে বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ যে প্রস্তাবটি পাশ করে , তাতে ভোট দিতে চীন ও রাশিয়া বিরত ছিল।

এ দিকে পোপ বেনেডিক্ট আজ এক বিবৃতি দিয়েছেন , যেখানে সামরিক ও রাজনৈতিক নেতাদের প্রতি লিবিয়া্র জনগণের সুরক্ষার বিষয়টি বিচেনায় নেয়ার এবং মানবিক সাহায্য জনগণের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসা নিশ্চিত করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

মৌরিতানিয়ার নোকাচটে বৈঠকের পর আফ্রিকান ইউনিয়নের পাঁচ জন রাষ্ট্র প্রধানের একটি প্যানেল সংযম প্রদর্শনের জন্যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। এই প্যানেলটি আজ লিবিয়ার নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির

সঙ্গে বৈঠক করতে , সে দেশের রাজধানী ত্রিপোলিতে যাবার পরিকল্পনা করেছিল তবে পরে সেটি বাতিল করা হয়। আফ্রিকান নেতারা লিবিয়ার সঙ্কটরের নিস্পত্তির লক্ষে ইথোপিয়ার আদিস আবাবায় শুক্রবার বৈঠক ডেকেছেন । এই বৈঠকে যারাঁ যোগ দিতে পারেন , তাঁরা হচ্ছেন জাতিসংঘ , আরব লীগ , ইসলামি সম্মেলন সংস্থা এবং আফ্রিকান ইউনিয়নের প্রতিনিধি।

XS
SM
MD
LG