অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার প্রশ্নে পরস্পরকে অযোগ্য আখ্যা দিয়ে ট্রাম্প হিলারীর প্রচারণা


যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রশ্নে ডনাল্ড ট্রাম্প ও হিলারী ক্লিনটন একে অন্যকে অযোগ্য আখ্যা দিয়ে, যে যার নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। ওহাইতে এক সমাবেশে ট্রাম্প বলেছেন, হিলারী সন্ত্রাসী হামলা ও ইসলামিক ষ্টেট গোষ্ঠীকে পরাস্ত করতে পারবেন না। অপরদিকে হিলারী পেনসেলভেনিয়ায় তাঁর নির্বাচনী সমাবেশে বলেছেন, ট্রাম্প আমেরিকার নিরাপত্তা হুমকীর মুখে ঠেলে দিচ্ছেন। জ্লাটিকা হোকের রিপোর্ট শোনাচ্ছেন সেলিম হোসেন।

ইসলামিক ষ্টেটের উত্থানের জন্য প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও তাঁর সাবেক পররাস্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটন দায়ী মন্তব্য করে ওহাইর ইয়ংষ্টোনে রিপাবলিকান দলীয় নির্বাচনী সমাবেশে ডনাল্ড ট্রাম্প বলেন, তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তাদেরকে পরাস্ত করবেন।

“আমরা জর্ডানের বাদশা আব্দুল্লাহ, মিশরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাতাহ আস সিসিসহ অন্যান্য যারা সন্ত্রাসীদের ধ্ধংস চায় তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করবো। এই নতুন অভিযানে নেটোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মিত্রতা করবো”।

রাশিয়ার বন্ধু, একটি ইউক্রেনিয়ান রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ট্রাম্পের ক্যাম্পেইন ম্যানেজার পল ম্যানাফোর্টের লোভনীয় একটি চুক্তি হওয়ার বিষয়ে নিউইয়র্ক টাইমসের রিপোর্টের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি ট্রাম্প। তবে ম্যানাফোর্ট ঐ দল থেকে কোনো অর্থ গ্রহনের কথা অস্বীকার করেন। রাশিয়ার সঙ্গে তার পুরোনো ব্যাবসা সম্পর্কে তথ্য জানার চেষ্টা চলছে।

ইসরাইলে সোমবার থেকে নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেছে রিপাবলিকান দল যার মধ্যে দিয়ে দ্বৈত নাগরিকত্বে থাকা ৩ লক্ষ আমেরিকান-ইসরাইলীর ভোট পাওয়ার চেষ্টা করবেন ট্রাম্প।

রিপাবলিকান দলের ইসরাইল শাখার প্রতিনিধি জিভিকা ব্রত TZVIKA BROT বললেন, “তারা জানেন না; এমনকি তাদের মনেও নেই যে তারা ভোট দিতে পারেন। এবার আমরা তাদেরকে বোঝানোর চেষ্টা করবো যে তাদেরকে ভোট দিতে হবে; কারন একমাত্র এবং এক নম্বর ইস্যু –ইসরাইলী সরকারের জন্যে কে ভালো প্রেসিডেন্ট হতে পারে তা নির্বাচনে তাদের অংশগ্রহন প্রয়োজন”।

এইসব দ্বৈত নাগরিকদের অনেকেই রয়েছেন পেনসেলভেনিয়া রাজ্যে; সোমবার হিলারী ক্লিনটন সেখানে প্রচারণা সভায় তাদের উদ্দেশ্যে ট্রাম্পকে ভোট না দেয়ার আহবান জানান।

“আামি জানি এই উত্তর-পূর্ব পেনসেলভেনিয়ায় আপনাদের অনেকের বন্ধুরা ট্রাম্পকে ভোট দেয়ার কথা ভাবছেন। আপনারা তাদেরকে বোঝান তা না করতে”।

পেনসেলভেনিয়ার ষ্ক্র্যান্টনের ঐ সমাবেশে ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন ট্রাম্পের নীতি যুক্তরাষ্ট্রের জন্যে বিপদজনক।

“ট্রাম্পের চিন্তাভাবনা শুধু ভুলই নয়; বিপদজনক এবং প্রচন্ডভাবে-অ-আমেরিকান। আমাদের সংবিধান সম্পর্কে অজ্ঞতা ফুটে ওঠে তাদের কথাবার্তায়। তা মুলত সন্ত্রাসীদের পক্ষে প্রচার”।

নির্বাচন বিষয়ে সাম্প্রতিক জাতিয় জরিপে দেখা যায় হিলারী ক্লিনটনের পক্ষে সমর্থন ট্রাম্পের চেয়ে প্রায় ৭ পেয়ন্ট বেশী।

XS
SM
MD
LG