অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ফ্লিনের পদত্যাগপত্র পেয়েছেন ডনাল্ড ট্রাম্প


হোয়াইট হাউস মঙ্গলবার জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনকে পদত্যাগ করতে বলেছিলেন এবং তিনি তার পদত্যাগপত্র পেয়েছেন। এর কারন হচ্ছে ফ্লিনের প্রতি বিশ্বাস কমে যাওয়া এবং রাশিয়ার সঙ্গে যোগাযোগের বিষয়ে তার ব্যাখ্যা।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র Sean Spicer বলেন, "প্রেসিডেন্ট এই উপসংহারে পৌঁছেছেন যে, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার ওপর তাঁর, আর কোন বিশ্বাস নেই।“

ফ্লিন সেনাবাহিনীর একজন অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল। তিনি তিন সম্পাহ ডনাল্ড ট্রাম্পের শীর্ষ কৌশলগত উপদেষ্টার পদে থাকার পর সোমবার রাতে সরে দাড়ান। যা কার্যত একজন আমেরিকান প্রেসিডেন্ট দায়িত্ব নেবার পর, তাঁর শীর্ষ কর্মকর্তার সবচেয়ে দ্রুত সরে যাওয়ার ঘটনা।

পদত্যাগ পত্রে ফ্লিন লিখেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে তার টেলিফোন আলাপ নিয়ে, সে তদানিন্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট মাইক পেন্স এবং অন্যান্যদের তিনি অনবধানতায় অসম্পূর্ন তথ্য দিয়েছেন।

ওঢাশিযটন পোষ্ট এবং নিউইয়র্ক টাইমত পত্রিকার খবরে গত শুক্রবার লেখা হয়, ওবামা প্রশাসন রাশিয়ার ওপর যেসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে, ফ্লিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে তা নিয়ে আলোচনা করেন। যদিও ট্রাম্প প্রশাসনের তরফে এ ব্যাপারে অস্বীকৃতি ব্যক্ত করা হয়েছিল।

কংগ্রেসের সেনেট সভার বেশ কয়েকজন বিধায়ক ফ্লিনের ব্যাপারে তদন্তের জন্য বলেন। অন্যরা আবার তাকে বরখাস্ত করবার জন্যে এবং তার নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট সত্যায়ন পর্যালোচনার জন্যে প্রস্তাব দেন।

XS
SM
MD
LG