অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইরাকে স্থিতি প্রতিষ্ঠায় ইরানের সঙ্গে বসে কাজ করতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্রে


যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরী বলেছেন ইরানের সঙ্গে যতো বৈরীতাই থাকুক ইরাকে সুন্নী জঙ্গী দল ইসলামিক ষ্টেট অব ইরাক এবং লেভান্টের তৎপরতা বন্ধ করতে তারা ইরানের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত। ভয়েস অব আমেরিকার ভিক্টর বিটি রিপোর্ট থেকে শোনাচ্ছেন সেলিম হোসেন।

ভিক্টর বিটি তার রিপোর্টে বলেছেন জঙ্গী বা সন্ত্রাসী বিষয়ক বিশ্লেষকরা বলছেন ইসলামিক ষ্টেট অব ইরাক এবং লেভান্ট বা আইএসআইএল এর লক্ষ্য হচ্ছে সুন্নী মুসলমানদের সমর্থনে সিরিয়া ও ইরাকী অঞ্চলে ইসলামিক শাষণ কায়েম করা।

ইয়াহু নিউজের সঙ্গে দেয়া সাক্ষাৎকারে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরী বলেছেন ইরাক বিষয়ে ইতিবাচক কিছু করা যায় কিনা তা নিয়ে ইরানের সাথে আলোচনার দ্বার উন্মুক্ত রেখেছেন ওবামা প্রশাসন।

জন কেরী বলেন, “ইরান যদি প্রস্তুত থাকে এমন কিছু করতে যাতে ইরাকের অখন্ডতা ও সার্বভৌমত্ব অক্ষুন্ন থাকে এবং তারা সরকার গঠণ করতে সমর্থ হয় তবে তারা তাতে সমর্থণ করেন। এই মুহুর্তে আমি মনে করি আমাদের ধাপে ধাপে এগুনো উচিৎ এবং দেখা দরকার বাস্তবতা কি হতে পারে। তবে আমি বলতে পারবো না ঠিক কি করলে সেখানে স্থিতিশীল অবস্থা আসতে পারে যাতে সংবিধান ও নির্বাচনী পদ্ধতির প্রতি সম্মান এবং ইরাকী জনগনের দেশে একটি সরকার গঠনের সামর্থের প্রতি সম্মান থাকে; কোনো এক আঞ্চলিক দলকে বাদ দিয়ে বা অন্য দলকে সাহায্য করার মাধ্যমে নয়। তা হতে হবে সমস্ত কিছুর সমন্বিত রূপ, আর সেটির অভাবই ছিল গত কয়েক বছরের মূল সমস্যা”।


কেরী বলেন ইরাকে সংঘাত নিরসনে এবং সেখানে বাইরের সন্ত্রাসীদের প্রভাব ও উস্কানী বন্ধে যে কোনো সৃষ্টিশীল প্রক্রিয়া নিয়ে কথা বলতে ওয়াশিংটন প্রস্তুত। তবে তিনি বলেন সেখানে আইএসআইএল এর ক্রমবর্ধমান উপস্থিতির বেশ বড় কিছু কারণ রয়েছে।

জন কেরী বলেন, তারা শুধু সেখানেই নয়, ইউরোপ, আমেরিকা ও অন্যান্য স্থানেও মানুষের ক্ষতির চেষ্টায় রয়েছে। সেই কারনেই, আমরা বিশ্বাস করি এই অবস্থা নিরসন করার জন্য সকল ধরণের প্রচেষ্টা হাতে নেয়া আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন এবং এখন তাই আমরা করছি।

অষ্ট্রেলিয়ার মোনাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর ইসলাম এ্যান্ড মডার্ন ওয়ার্ল্ডের সহ-পরিচালক গ্রেগ বার্টন বলেন যুক্তরাষ্ট্র-ইরানের আলোচনা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন। তিনি বলেন ইরানও চায় ইরাকের বন্ধুসুলভ শিয়া প্রধানমন্ত্রী নুরী আল মালিকির নেতৃত্বে একটি স্থিতিশীল ইরাক থাকুক যাতে তাদের নিজেদেরও নিরাপত্তা থাকে।

গ্রেগ বার্টন বলেন, “সম্ভবত তারা (ইরান) আমেরিকা ও অন্যান্যদের সঙ্গে মিলে এমনভাবে কাজ করতে পারেন যাতে মালিক সরকার বুঝতে পারে যে যা কিছু সেখানে ঘটছে, সেনা বাহিনীর মাধ্যমে তার সমাধানের চেয়ে রাজনৈতিক সমাধান বেশী প্রয়োজন। সেখানে আইএসআইএল এর ব্যাপক উপস্থিতির কারন হচ্ছে বাগদাদের প্রতি সেখানেকার স্থানীয় জনগনের বিরোধপূর্ন দৃষ্টিভঙ্গী। যদি বাগদাদ উত্তর পূর্ব অঞ্চলে কুর্দীদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো করতে পারে এবং উত্তর পশ্চিমে সুন্নীদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো করতে পারে, তাহলে আইএসআইএল এর সহায়তা নেয়ার সম্ভাবনা অর্ধেকই কমে যায়"।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয় মুখপাত্র জেন সাকি সোমবার স্বীকার করেন যে আইএসআইএল কে অর্থ ও অন্যান্য সহায়তা দিচ্ছে সিরিয়া এবং এজন্য যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরাকের এই সুন্নী প্রতিবেশীর সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে।
XS
SM
MD
LG