অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ব্রাজিলের সাঁও পাওলোতে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ১২ই জুন ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়ার খেলার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ফুটবলের সর্ববৃহৎ আসর বিশ্বকাপ ফুটবল। এশিয়া ইউরোপ আফ্রিকা অষ্ট্রেলিয়া এক হয়ে গেছে এই বিশ্বকাপ ফুটবলের সুবাদে।

কেউ মাঠে গিয়ে আবার কেউ ঘরে বসেই টিভি পর্দায় দেখছেন খেলা। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের সবচেয়ে বড় অংশের বসবাস নিউইয়র্কে। কি ভাবছেন, কেমন দেখছেন এবারকার বিশ্বকাপ ফুটবল তা নিয়ে জ্যাকসনহাইটসে কথা হলো কয়েকজন প্রবাসী বাংলাদেশী সঙ্গে।

ওয়াশিংটন ডিসির ন্যাশনাল মলে প্রায় সব সময়ই থাকে বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের ভীড়। এবার বিশ্বকাপ ফুটবল কে কেমনভাবে উপভোগ করছেন সে বিষয়ে সহকর্মী শতরূপা বড়ুয়াকে সঙ্গে নিয়ে কথা হলো বেশ কয়েকজনের সঙ্গে।

ইংল্যান্ডের এই পর্যটক দম্পতি খেলা দেখে হতাশ হলেও তাদের দল ইংল্যান্ড ভবিষ্যতে ভালো করবে এই আশা রাখেন। তবে বিশ্বকাপ জেতার আশা যে তাদের নেই অকপটে তা স্বীকার করলেন।

ইউরোপে লেখাপড়া করেন এই আমেরিকান তরুণী। সেখানে ফুটবল শুনতে শুনতে দেশে ফিরে সকার শব্দটি তার খানিকটা বেখাপ্পা মনে হয়। আর সে কথাই জানালেন তিনি।
ফ্রান্সের এই দম্পতির কাছে ফুটবল যুদ্ধ এখনো পর্যন্ত ভালো লাগছে। ষ্পেন হেরে যাওয়ায় তার কিছুটা বিস্মিত আর ফরাসী দল জেতায় উৎফুল্ল।

বেলজিয়ানএই নারী খুব খুশী তার দেশ জেতায়।তার সঙ্গী এই ইটালীয়ান পর্যটক আশা করেন ইটালীই বিশ্কাপ জিতবে।

জার্মানী ও ইটালীর দুই বন্ধু এরা। বললেন যুক্তরাষ্ট্রে ফুটবলের মজা নেই। ইউরোপেই জমে ফুটবল।

ক্যালিফোর্নিয়ার এই ক্ষুধে ফুটবলার ৮ বছর ধরে ফুটবল খেলে। বিশ্বকাপ খেলা দেখছে এবং সে আশা করে ব্রাজিল চ্যাম্পিয়ন হবে।

যুক্তরাষ্ট্র দল সম্পর্কে প্রশ্ন করলে সে বলল, শেষ আটে যাবে যুক্তরাষ্ট্র তবে কোয়ার্টার ফাইনালে বাদ পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সকলেই অপেক্ষায় রয়েছেন কি ঘটে ১৩ই জুলাই বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে তাই দেখার।
XS
SM
MD
LG