অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে দিয়েছে যে, জিকা জীবাণু গোটা আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়ছে এবং এর ফলে চল্লিশ লক্ষের মতো লোকের উপর এর প্রতিকুল প্রভাব পড়তে পারে। এই জীবাণুকে, গুরুতর স্বাস্থ্যগত সমস্যা নিয়ে শিশু জন্মের কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে যে, মশা বাহিত এই জীবাণুকে প্রথমে মানুষের জন্য হাল্কা ঝুঁকির বিষয় বলে মনে করা হতো কিন্তু এখন তা আশঙ্কাজনক ভাবে জনস্বাস্থ্যের প্রতি হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে।

জাতিসংঘের এই সংস্থার মহাপরিচালক মার্গারেট চান বলেন, ১৯৪৭ সালে উগান্ডায় প্রথমে এই জিকা জীবাণুটি আবিস্কৃত হয়। সেই থেকে এটি গোটা পৃথিবীতেই ছড়িয়েছে এবং সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তা মস্তিস্কজনিত জটিলতার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই রোগ সংক্রমণের কারণে হাজার হাজার অন্তঃসত্বা নারী বিকলাঙ্গ গুরুতর শিশুর জন্ম দিয়েছেন।

আজ জিনিভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক বিশেষ বৈঠকে চান বলেন যে দক্ষিণ ও উত্তর আমেরিকায় এই ভাইরাস মারাত্মক ভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। তিনি এ ব্যাপারে সোমবার বিশেষজ্ঞদের নিয়ে এক জরুরী সভার ডাক দিয়েছেন। তিনি বলেন এখন পর্যন্ত আমেরিকা মহাদেশের ২৩ টি দেশে এই জীবানু ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই জীবাণুর সঙ্গে, অস্বাভাবিক ভাবে অত্যন্ত ক্ষুদ্র মাথা নিয়ে শিশু জন্মের সম্পর্ক পাওয়া যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা জিকা সংক্রমণের বিরুদ্ধে পরীক্ষা, টিকা এবং চিকিৎসা উদ্ভাবন জানিয়েছেন। এ পর্যন্ত এর বিরুদ্ধে চিকিৎসার সব প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হয়েছে। ওবামা এরই মধ্যে স্বাস্থ্য বিষয়ক পদস্থ উপদেষ্ঠাদের নিয়ে বৈঠক করেছেন।

XS
SM
MD
LG