অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্বকাপ ফুটবল ফাইনাল। মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা আর জার্মানী। মারাকানইয়া স্টেডিয়াম থেকে শুরু করে ব্রাজিলের কোপাকাবানা সৈকত ছাড়িয়ে দূরদূরান্ত এবং বাংলাদেশ, লাতিন আমেরিকাসহ অনেক প্রান্তেই আর্জেন্টিনার ভক্তদের পাল্লা বোধহয় এখন ভারী।

দুদেশের দর্শক ভক্তদের মধ্যে বিপুল উত্সাহ-উচ্ছাস দেখা যাচ্ছে। যেমন আর্জেন্টিনার সমর্থক বলেলন – ‘কঠিন হবে। হিসাবে দেখা যাচ্ছে জার্মানীই জিতবে। তবে আর্জেন্টিনার রয়েছেন তারকা স্ট্রাইকার মেসি, তাদের অসংখ্য ভক্ত আর স্বয়ং পোপ। হ্যাঁ, আর্জেন্টিনাই চ্যাম্পিয়ান হবে’। আর জার্মানীর ভক্তদের কথা –‘আমরা আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে জিতবো বলেই আশা করছি। না, আশা নয়...আমরাই জয়ী হবো’।

তবে এরই মাঝে ব্রাজিল বিশ্বকাপের আর্থিক খতিয়ান শুরু হয়ে গেছে। সরকার বলেছেন, তারা বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে লক্ষ কোটি ডলার ব্যয় করেছেন। স্টেডিয়াম, রাস্তাঘাট তৈরী থেকে নিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থাখাতে অজস্র ডলার খরচা হয়েছে। মাদক চোরাকারবার, আইনশৃঙ্খলাবিধান ও অন্যান্য অপরাধ দমনের বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ফিফা কিশোর তরুনদের জন্য সামাজিক কর্মসুচীতে অর্থ সহায়তা দিয়েছে, পরিবেশ রক্ষা, এইচআইভি-এইডস সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি, শিক্ষা কার্যক্রমে সাহায্য করেছে। সরকার বলছেন, বিশ্বকাপ ব্রাজিলের অর্থনীতিকে সাহায্য করেছে, তবে সাধারণ মানুষের প্রতিবাদে শোনা যাচ্ছে – ‘বিশ্বকাপে সামান্য কিছু মানুষের লাভ হয়েছে বটে, তবে তাদের এবং দেশের কোনই উন্নতি হয়নি, হবে না’। এখন অপেক্ষা ফাইনালের।

XS
SM
MD
LG