অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আজ শনিবার বিশ্ব শরনার্থী দিবস পালন করা হচ্ছে। জাতিসংঘের শরনার্থী সংস্থা UNHCR একটি প্রতিবেদনে বলছে যে বিশ্বে এখন রেকর্ড সংখ্যক পাঁচ লক্ষ পঁচানব্বই হাজার লোক নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে তাদেঁর ঘর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন। গত বছর এই সংখ্যা ছিল পাঁচ লক্ষ বারো হাজার।

শরনার্থী বিষয়ক জাতিসংঘের হাই কমিশনার অ্যান্টোনিও গুটেরাস বলেছেন , আমরা এখন এর পরিচিত কাঠামোতে পরিবর্তন লক্ষ্য করছি । বিশ্বব্যাপী বাধ্য হয়ে স্থানচ্যুত হবার বিষয়টি এখন নিয়ন্ত্রণের বাইরে এবং এর প্রতি সাড়া দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা আগেকার তুলনায় এখন অনেক বেশি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন যে বিশ্ব শরনার্থী দিবস হচ্ছে সেই বিশেষ মুহুর্ত যুক্তরাষ্ট্রের জন্যে যখন আমরা এদের প্রত্যেকের জীবনের মর্যাদা, মূল্য এবং সম্ভাবনাকে স্বীকৃতি দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ে আমাদের শরিকদের সঙ্গে একত্রিত হতে পারি।

জাতিসংঘ বলছে যে প্রতি ১২২ জন মানুষের মধ্যে একজন হয় শরনার্থী, কিংবা নিজ দেশেই বাস্তুচ্যূত অথবা নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে রয়েছে। এই সংখ্যা যোগ করে যদি কোন দেশের জনসংখ্যা কজরা যায়, তাহলে সেটি হতো বিশ্বের ২৪তম জনসংখ্যাবহুল একটি দেশ।

মি ওবামা বলছেন, এই সংগ্রামের যে অসহায় চিত্রটা আমরা দেখতে পাই তার মধ্যে রয়েছে, সীমান্ত পারাপারে জন্যে জনগণের প্রতীক্ষা, তাঁবুর সীমাহীন সারিতে লোকজনের বসবাস, কিংবা সরু নৌকায় উপচে পড়া মানুষের ভীড় সেই সাথে রয়েছে বড় বড় শহরে আশ্রয় নেওয়া মানুষের ভীড় যাদের হয়ত আমরা লক্ষই করি না। জাতিসংঘ বলছে যে বিশ্বের সংকট ও সংঘাতের কারণে দেশান্তরী লোকজন মানবপাচারকারীদের কবলে পড়ছে।

XS
SM
MD
LG