অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মহান নেতা নেলসান ম্যান্ডেলাকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছেন বিশ্ব নেতৃবর্গ


বিশ্ব নেতৃবর্গ তাঁকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মিঃ ম্যাণ্ডেলাকে প্রভাবশালী, দারুণ সাহসী ও অতি সত্ মানুষ বলে অভিহিত করে বলেন, “আমি সেই লক্ষ কোটি মানুষের একজন, যারা নেলসান ম্যাণ্ডেলার জীবন থেকে অনুপ্রানিত হয়েছি। আমার প্রথম রাজনৈতিক পদক্ষেপ ছিল, আমি প্রথম যা করেছি, নীতি বলুন বা রাজনীতি আমি বর্ণবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছিলাম। আমি তাঁর কথা ও লেখা অনুধাবন করেছি। যেদিন তিনি কারামুক্ত হলেন, তখন আমি উপলব্ধি করেছি যে মানুষ যদি তাদের ভয়ভীতি নয়, আশা নিয়ে পরিচালিত হয়, তা হলে কি অর্জন করতে পারে।”

দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবৈষম্য যুগের শেষ প্রেসিডেন্ট এফ ডব্লু দ্য ক্লার্ক বলেন, মিঃ ম্যাণ্ডেলার সবচাইতে উল্লেখযোগ্য অবদান ছিল সমঝোতার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা। ১৯৯০ সালে তাঁকে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়ার পর, ১৯৯৩ সালে মিঃ দ্য ক্লার্ক এবং নেলসান ম্যাণ্ডেলা উভয়ে নোবেল শান্তি পুরস্কার লাভ করেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার আর্চবিশপ ডেসমণ্ড টুটু তার বন্ধুকে ‘মহামূল্যবান হীরক’ বলে উল্লেখ করেন।

দালাই লামা বলেছেন, “তিনি আমাদের বুঝিয়ে ছিলেন যে, কাউকেই তার গায়ের বর্ণ, যে পরিবেশে তার জন্ম, তার জন্য শাস্তি দেওয়া উচিত নয়।”

জাতিসংঘ মহাসচীব বান কি মুন, জনগনের প্রতি একটি উন্নত ও ন্যায়সঙ্গত বিশ্ব গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, “নেলসান ম্যাণ্ডেলা আমাদেরকে বুঝিয়েছেন যে আমরা যদি কোন আদর্শে বিশ্বাস করি, যদি সেই স্বপ্ন দেখি তা হলে কি সাধন করা যেতে পারে।”

বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিডড ক্যামেরন বলেছেন, “তিনি সত্যিকার অর্থে বিশ্বের মহানায়ক ছিলেন। আজ এক মহান আলোক বর্তিকা হারিযে গেল।”

ইস্রায়েলী প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু তাঁকে “আমাদের বর্তমান সময়ের অত্যন্ত সম্মানিত ব্যক্তিত্ব” বলে অভিহিত করেন।

ফিলিস্তিনী প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ম্যাণ্ডেলাকে “উপনিবেশবাদ ও দখলদারী থেকে মুক্তির এক প্রতীক’ বলে উল্লেখ করেন।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তাঁর মৃত্যুতে গভীর দুঃখ জানিয়ে বলেন, তিনি ছিলেন মহান এক রাষ্ট্রনায়ক।”

নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী বার্মার অংসান সু চি তাঁকে মহান ব্যক্তি বলে উল্লেখ করেন বলে “তিনি মানবতার মর্যাদা আরও উন্নত করেছেন।”
XS
SM
MD
LG