অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শীতকালীন অলিম্পিক এর মশাল মহাকাশে : রোকেয়া হায়দার



অলিম্পিক মশাল কত উঁচুতে উঠেছিল মনে আছে কি ? ২০০৮ সালে বেজিং গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের মশাল নিয়ে যাওয়া হয় এভারেস্ট পর্যন্ত । কিন্তু রাশিয়ার সোচি শীতকালীন অলিম্পিকের মশাল জ্বলে উঠবে আরও উঁচুতে । কোথায় ?

অলিম্পিকে মশাল জ্বলেছে এভারেস্ট চূড়ায়, আর এবার যাবে মহাকাশে। হ্যাঁ, ঠিক কথাই বলছি। ভয়েস অফ আমেরিকার সুসান প্রেস্টো তার প্রতিবেদনে জানিয়েছেন, সোচি শীতকালীন অলিম্পিকের মশাল হরিণের টানা শ্লেজে করে বহু পথ পাড়ি দিয়ে, নিয়ে যাওয়া হবে সোইয়ুজ মাহাকাশযানের কাছে। আর সেই মহাকাশ যান মশালটি নিয়ে পাড়ি জমাবে মহাশূণ্যে। ঠিক তাই।
রাশিয়ার নভোচারী ওলেগ কটোভ ও সারগেই রিয়াজানস্কি এবং যুক্তরাষ্ট্র মহাকাশ কেন্দ্র নাসার নভোচারী মাইক হপকিন্স, এই তিনজন মিলে যাবেন আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে। তাদের যাত্রা সেপ্টেম্বর মাসে শুরু।
টেক্সাস রাজ্যের হিউস্টন শহরে নাসার জনসন মহাকাশ কেন্দ্রে এক সাংবাদিক সম্মেলনে নভোচারী কটোভ জানালেন তাদের এবারের মহাশূণ্য অভিযানের এক আকর্ষণ হচ্ছে – ‘অলিম্পিক মশাল’। তিনি বলেন, ‘আমাদের পরের ক্রুরা মহাকাশ কেন্দ্রে মশালটি নিয়ে যাবেন এবং তারপর আমি ও সারগেই, মহাকাশ কেন্দ্র থেকে বেরিয়ে গিয়ে আমাদের প্রথম এক্সট্রা ভেহিক্যুলার একটিভিটি বা ইভা অভিযানে মশালটি নিয়ে, মহাশূণ্যে ঘুরে বেড়াবো’
কটোভ জানান নভোচারীরা তাদের পদচারণার সময়, এই অবিস্মরণীয় ঘটনার ছবি তুলবেন, ঘটনার ভিডিও করবেন। আর হয়তো মহাকাশে তারা এক অপূর্ব উত্সবের আয়োজন করবেন। সংগঠকরা বলছেন নভোচারী মিখায়েল টিউরিন নভেম্বর মাসে মশালটি নিয়ে যাবেন মহাকাশ কেন্দ্রে আর তার কয়েকদিন পরে নভোচারী ফিওডর ইউরচিকিন মশাল নিয়ে পৃথিবীতে ফিরে আসবেন। মহাকাশ কেন্দ্রে মোট ৯জন মশালটি নিয়ে এই আয়োজনে যোগ দেবেন। আরেকটি উল্লেখযোগ্য আন্তর্জাতিক ঘটনা হচ্ছে রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও ইটালী – চারটি দেশ এই ঐতিহাসিক ঘটনার অংশীদার। যুক্তরাষ্ট্র ২০১১ সালে তার শাটল বহর গুটিয়ে নেওয়ায়, বর্তমানে রাশিয়াই হলো একমাত্র দেশ যে মহাকাশ কেন্দ্রে ক্রু নিযে যেতে পারে। ওদিকে সোচি সংগঠক কমিটি জানিয়েছে, নিরাপত্তাজনিত কারণে মশালে আগুন জ্বালানো হবে না, কিন্তু সোচি গেমসের মশাল নিয়ে নভোচারীরা অবশ্যই মহাকাশে পদচারণা করবেন ।

XS
SM
MD
LG