অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ঘটছে লিংগভিত্তিক সহিংসতা ও যৌন হয়রানি


A group of Rohingya girls at Kutupalong refugee camp in Cox's Bazar, Bangladesh.

কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মাঝে পারিবারিক কিংবা লিংগভিত্তিক সহিংসতা ও যৌন হয়রানীর ঘটনা ঘটলেও তা প্রকাশ করেনা রোহিঙ্গারা। এতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে এতিম শিশুরা।
এ সম্পর্কে কক্সবাজার থেকে সংবাদদাতা মোয়াজ্জেম হোসাইন সাকিলের প্রতিবেদন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:30 0:00

কক্সবাজারের ৩০টি ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া ১১ লাখ রোহিঙ্গার মধ্যে প্রায় ৪০ হাজার এতিম শিশু। তারা আশ্রয় নিয়েছে আত্মীয় স্বজন কিংবা পরিচিত কোন পরিবারে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পারিবারিক কিংবা লিংগভিত্তিক সহিংসতা ও যৌন হয়রানীর ঘটনাগুলোতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে এসব অসহায় শিশুরা।
টেকনাফের লেদা ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া দুই কিশোরী বলেন, তাদের দু’জনেরই মা-বাবা নেই।
এরকম পিতা-মাতাহীন কিশোর-কিশোরীদের পড়তে হচ্ছে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে। এছাড়া রোহিঙ্গাদের মাঝে কম বয়সে বিয়ে দেয়ার প্রবণতা অনেক বেশি। বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ডাক্তার ফারুক উল ইসলাম বলেন, কিশোরীদের কম বয়সে বিয়ে হয়ে যাওয়াতে অনেক সহিংসতার শিকার হতে হচ্ছে ক্যাম্পে।
যেকোন সহিংসতা অথবা যৌন হয়রানীর শিকার হলেও তা প্রকাশ করেনা রোহিঙ্গারা। কিন্তু এসব ঘটনায় আহত অনেকেই সেবা নিতে যান চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে।উখিয়ার তাজনিমার ঘোনা চিকিৎসা ক্যাম্পে কর্মরত ডাক্তার সানিয়া নাসরিন বলেন, আক্রান্তদের অনেকেই চিকিৎসা নিতে এসে ব্যথা কিংবা রক্তপাতের ঘটনার কথা বললেও আসল ঘটনা বলতে লজ্জা পান। তাই তারা যৌন হয়রানির ঘটনাগুলো লুকাতে চান। কেউ প্রকাশ করলেও তাকে উল্টো নানা সমস্যায় পড়তে হয়।
এসব বিষয়ে বিভিন্ন তদারকি প্রতিষ্ঠানের কাছেগোপন প্রতিবেদন থাকলেও তা অপ্রকাশিত। রোহিঙ্গারা নিজেরাও প্রকাশ করেনা এসব ঘটনা। কক্সবাজারের একজন মানবাধিকার কর্মী এবং সেন্টার ফর জাকাত ম্যানেজমেন্টের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর এস এম আনোয়ার হোসেন ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পারিবারিক সহিংসতার ঘটনা ঘটছে এবং শিশুরা যৌন হয়রানীর শিকার হচ্ছে। কিন্তু রোহিঙ্গারা লজ্জার কারণে তা স্বীকার করেনা।
মিয়ানমারে সামরিক জান্তা কিংবা মগদের হাতে নির্যাতন ও ধর্ষণের বর্ণনা প্রকাশে আগ্রহী রোহিঙ্গারা; ক্যাম্পে নিজের দ্বারাই সংগঠিত ঘটনাগুলোর ব্যাপারে যেন মুখেই খোলেনা। আক্রান্তরাও সয়ে যায় নিরবে। অপ্রকাশিত থেকে যায় গোপন প্রতিবেদন। এর সবচেয়ে বেশি শিকার হচ্ছে এতিম শিশুরা।

XS
SM
MD
LG