অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কুমিল্লায় সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা সৃষ্টির অপচেষ্টা: শহর এখন শান্ত 


ধর্মগ্রন্থ অবমাননার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতাকে শান্ত থাকার আহ্বান জানান জেলা প্রশাসক- ফটো- মানবজমিন

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর কুমিল্লার নানুয়া দীঘিরপাড় এলাকার একটি পূজামণ্ডপ থেকে পবিত্র কোরআন শরীফ পাওয়ার পর উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা চালানো হয়। এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ জনতার দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। পুলিশ গুলি, লাঠিচার্জ, কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। এতে পুলিশের তিন কর্মকর্তাসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। পূজা উদযাপন কমিটির সম্পাদক নির্মল পাল বলেছেন, পূজামণ্ডপের প্রতিমায় কোরআন রাখার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর পুলিশ তা সরিয়ে নেয়। এরপর একদল ব্যক্তি বেশকিছু পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা চালায়। পরিস্থিতি এখন শান্ত। র‍্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও আনসার টহল দিচ্ছে।

নানুয়া দীঘির উত্তরপাড়ে রাস্তার পাশের দর্পণ সংঘের একটি পূজামণ্ডপে কোরআন শরীফ দেখতে পাওয়া যায়। স্থানীয় লোকজন ৯৯৯-এ পুলিশকে মোবাইল ফোনে কল করে। খবর পেয়ে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে গিয়ে কোরআন শরীফ সরিয়ে নেয়। এর মধ্যে খবরটি ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর সেখানে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হয়ে কোরআন শরীফ অবমাননার প্রতিবাদে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে পুলিশ অ্যাকশনে যায়। এ সময় গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে সারা শহরে।

এ সময় মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়। নগরীর কান্দিরপাড়, রাজগঞ্জ, চকবাজার, টমছমব্রিজসহ বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। এ সময় কয়েকটি পূজামণ্ডপের গেটে ভাঙচুর চালানো হয়। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে নগরীতে শান্তি মহড়া বের হয়। এরপর পরিস্থিতি শান্ত হতে থাকে।

ওদিকে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান এক বিবৃতিতে বলেন, কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননা সংক্রান্ত খবর আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। খবরটি খতিয়ে দেখার জন্য ইতিমধ্যে আমরা স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছি। ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে যে কেউ এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকুক তাদেরকে অবশ্যই আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

তবে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কাউকে আইন হাতে তুলে না নেয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী। সকলকে ধর্মীয় সম্প্রীতি ও শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

XS
SM
MD
LG