অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দ্বিতীয় দফা করোনা ভাইরাস প্রনোদনা বরাদ্দ আসছে


যুক্তরাষ্ট্রে বেড়েই চলেছে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যে ৪ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। এই অবস্থায় যেসব রাজ্য লকডাউন তুলে নেয়ার প্রক্রিয়ায় ছিলো সেসব রাজ্য আবারো নতুন করে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। যারা বেকার হয়েছিলেন তারাসহ নতুন বেকারত্বও বাড়ছে। অবস্থার প্রেক্ষিতে সেনেট রিপাবলিকানরা দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাস প্রনোদনা বরাদ্দের পরিকল্পনা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে বেড়েই চলেছে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যে ৪ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। এই অবস্থায় যেসব রাজ্য লকডাউন তুলে নেয়ার প্রক্রিয়ায় ছিলো সেসব রাজ্য আবারো নতুন করে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। যারা বেকার হয়েছিলেন তারাসহ নতুন বেকারত্বও বাড়ছে। অবস্থার প্রেক্ষিতে সেনেট রিপাবলিকানরা দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাস প্রনোদনা বরাদ্দের পরিকল্পনা করেছেন।

দ্বিতীয় দফা করোনা ভাইরাস প্রনোদনা বরাদ্দ আসছে
please wait

No media source currently available

0:00 0:01:46 0:00

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:29 0:00

এই মুহুর্তে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিন পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে।

হোয়াইট হাউজ চীফ অব স্টাফ মার্ক মিডোসের বক্তব্যে সেকথা স্পষ্ট উঠে আসে।

“সংক্রমণের সংখ্যা এখন বেশি কারন পরীক্ষা বেশি হচ্ছে। তবে এটাকে ঠেকাতে হলে আমাদেরকে নার্সিং হোম, সেবা প্রতিষ্ঠানসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর দিকে নজর দিতে হবে”।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন ভিন্ন কথা। তারা বলছেন করোনার সংক্রমণ বাড়ছে বলেই পরীক্ষায় ধরা পড়ছে বেশী। আর করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ফেডারেল কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম শক্তিশালি নয়।

নিউ মেক্সিকোর গভর্ণর লুহান গ্রিশম্যান বলেন, “আমরা খানিকটা আল্লার ওয়াস্তে চলছি। জাতীয়ভাবে কোনো পদক্ষেপ নেই। গনস্বাস্থ্য খাতে কোনো বিনিয়োগ নেই। শুরু হয়েছে – হোক্স বলে। এই অবস্থা থেকে উন্নতির জন্যে জাতীয়ভাবে কোনো সমন্বিত প্রয়াস নেই”।

লকডাউন তুলে নেয়ার যেসব প্রয়াস বিভিন্ন রাজ্যে নেয়া হচ্ছিলো তা বন্ধ করা হয়েছে। এই অবস্থায় ১১ শতাংশ আমেরিকান বেকার। তাদের দৈনন্দিন জীবন চালাতে দ্বিতীয় একটা প্রনোদনার প্রয়োজন।

রিপাবলিকানরা এই প্যাকেজ পাশ করার প্রয়াস চালাচ্ছেন। ডেমোক্রেটদের সহযোগীতার ওপর নির্ভর করবে এই বিল। মার্ক মিডোস বলেন, “আজকের মধ্যেই এই প্রনোদোনা বিলটি তৈরি হয়ে যাবে। যারা বেকার হয়েছেন তাদের আয়ের ৭০ শতাংশ যাতে পায় সেই চেষ্টা করা হচ্ছে”।

চলতি সপ্তাহের পর, সপ্তাহে ৬০০ ডলারের যে বেকার ভাতা দেয়া হচ্ছিলো তা বন্ধ হতে চলেছে। তবে রিপাবলিকান বিলে হয়তো বরাদ্দের অংক কমে যাবে। ডেমোক্রেটরা চেষ্টা করছেন সাপ্তাহিক ৬০০ ডলার ভাতা ঠিক রাখতে।

এশা সারাইয়ের প্রতিবেদন থেকে সেলিম হোসেন, ভয়েস অব আমেরিকা

XS
SM
MD
LG