অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে ১৫ই ডিসেম্বর থেকে সেনা বাহিনী নামছে


আগামী ১৫ই ডিসেম্বর থেকে মাঠে থাকবে সেনা বাহিনী। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিশেষ সভায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা এ তথ্য জানিয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশ্যে সিইসি বলেন, ১৫ই ডিসেম্বরের পর সশস্র বাহিনীর ছোট টিম পুলিশের সাথে দেখা করবে। প্রতি জেলায় থাকবে সশস্রবাহিনীর টিম। এদেরকে নিয়ে সমন্বয় করে কাজ করবেন।

বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো বিচারিক ক্ষমতাসহ সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়ে আসছিলো। তবে এখন বেসামরিক প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিতে সেনা মোতায়েন থাকবে। আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের তথ্য সংগ্রহ না করতে পুলিশকে নির্দেশনা দেন সিইসি। বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের তথ্য সংগ্রহ করার কথা আমরা বলিনি। এটা আপনারা করবেন না। কারণ, এটা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। যারা ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা, তাঁরা বিব্রত হন। তিনি আরো বলেন, কাউকে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেপ্তার করবেন না। হয়রানিমূলক মামলা করবেন না। আশা করি আপনারা এটা করছেনও না। এদিকে, নির্বাচনি মাঠে সমতা নিশ্চিতে নির্বাচন কমিশনে ১৩ দফা দাবি জানিয়েছে বিএনপি। লিখিত দাবি দাখিলের পর দলটির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, সরকারি কর্মকর্তারা এখনো নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন। ওদিকে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নির্বাচনী কেন্দ্র পাহারার নামে দেশে গৃহযুদ্ধের উসকানি দিচ্ছে। এছাড়া, ঐক্যফ্রন্টের তরফে বলা হয়েছে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ফ্রন্টের ইশতেহার প্রকাশ করা হবে। গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী এ তথ্য জানান।

ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর পাঠানো বিস্তারিত প্রতিবেদন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:53 0:00

XS
SM
MD
LG