অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিলেত ফেরত দুই যাত্রীর করোনা শনাক্ত হওয়ায় আতঙ্ক


বিলেত ফেরত দুই যাত্রীর করোনা শনাক্ত হওয়ায় আতঙ্ক

বিলেত ফেরত দুই যাত্রীর শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ায় একধরনের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। যদিও  এখন পর্যন্ত পরীক্ষা করে দেখা হয়নি এদের শরীরে বিলেতের নতুন স্ট্রেইনের হদিস রয়েছে কিনা।

বিলেত ফেরত দুই যাত্রীর শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ায় একধরনের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। যদিও এখন পর্যন্ত পরীক্ষা করে দেখা হয়নি এদের শরীরে বিলেতের নতুন স্ট্রেইনের হদিস রয়েছে কিনা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এবিএম খুরশীদ আলম জানিয়েছেন, পরীক্ষার পর এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যাবে। বৃটেনে নতুন ধরনের করোনা ভাইরাস ধরা পড়ায় যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের বাধ্যবাধকতা থাকলেও গত শনিবার থেকে কমিয়ে তা চারদিন করা হয়েছে। গত ৩রা জানুয়ারি এই দুই যাত্রীকে একটি হোটেলে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়। কোয়ারেন্টিনের সময় শেষ হয়ে যাওয়ার পর নমুনা পরীক্ষা করা হলে শনিবার করোনা পজিটিভ আসে। এরপর তাদেরকে কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই দুইজনের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন মহিলা।

বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক তাদের উদ্ভাবিত বঙ্গভ্যাক্স টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য আবেদন জানিয়েছে। রোববার দুপুরে এই প্রতিষ্ঠানটির তরফে বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলে আবেদন জমা দেয়া হয়। গত বছর ২৮শে ডিসেম্বর গ্লোব বায়োটেককে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের জন্য টিকা উৎপাদনের অনুমতি দেয়া হয়। কোম্পানিটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

ওদিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরও ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে শনাক্ত কমেছে। এদিন শনাক্ত হয়েছেন ৫৬৯ জন। গত আট মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম রোগী শনাক্ত হয়েছেন এদিন। গত বছর ২রা মে এর চেয়েও কম রোগী শনাক্ত হন। সেদিন ৫৫২ জন শনাক্ত হয়েছিলেন।

আগামীতে রেমিট্যান্সের প্রবাহ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে সিপিডি। রোববার এক ভার্চুয়াল সংলাপে বলা হয়েছে, করোনাকালে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি প্রবাসী শ্রমিক কাজ হারিয়ে দেশে ফিরলেও রেমিট্যান্স প্রবাহে ঊর্ধ্বগতি ছিল। গত জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত রেমিট্যান্স বেড়েছে ৩৮ শতাংশ। সরকারের দুই শতাংশ প্রণোদনা ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবা এতে অবদান রেখেছে। কিন্তু অতিমারির কারণে পুরো বিশ্বের অর্থনীতি বিপর্যস্ত। কমে গেছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য। এ সময় শত শত প্রবাসী শ্রমিক কাজ হারিয়ে দেশে ফিরেছেন। অনেকে আবার ফিরেও যেতে পারছেন না। এই অবস্থায় রেমিট্যান্স প্রবাহে চাপ সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা বেশি বলে মনে করে সিপিডি। ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:04 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG