অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কৌশলগত কারণে ভারত সিন্ধু জলচুক্তি বাতিল করবে না


শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের সঙ্গে ১৯৬০ সালের সিন্ধু জলচুক্তি বাতিল না করাই স্থির করলেন প্রধানমন্ত্রি নরেন্দ্র মোদি। বাতিলের একটা বিপদের দিক হল, তেমন কাজকে পাকিস্তান যুদ্ধাপরাধ অভিহিত করতে পারে। তার বদলে অন্য কৌশল নিল ভারত। এত দিন সিন্ধু উপত্যকার তিন নদীর বহমান জলের যে ২০% ভারতের প্রাপ্য ছিল, তার পুরোটা ভারত কাজে লাগায় নি। এখন স্থির হয়েছে, প্রাপ্য পুরো ভাগটাই কাজে লাগিয়ে ভারত আরও জমিতে সেচ ও আর জলবিদ্যুত উতপাদন করবে।

পাকিস্তান এত দিন যে নিজের প্রাপ্য ৮০ শতাংশের বেশি জল পেয়ে চলেছিল, তা আর পাবে না। দেশ ভুগবে জলাভাবে। অথচ, কোনও চুক্তিভঙ্গের দায়ে পড়বে না ভারত। প্রত্যাশা, জলে টান পড়লে পাকিস্তানের জমি থেকে ভারতে নিয়মিত জঙ্গী আক্রমণেও ভাঁটা পড়বে। শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে মোদি নির্দেশ দিয়েছেন, পাকিস্তান জঙ্গীদের মদত দেওয়া বন্ধ না করা পর্যন্ত ঐ চুক্তির রূপায়ণে নানান সমস্যা আলোচনার জন্য ছয় মাস অন্তর যে জল চুক্তি কমিশনের বৈঠক বসে, তা-ও বন্ধ থাকবে। প্রধানমন্ত্রির কথায়, জল আর রক্ত এক সঙ্গে বইতে পারে না।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:55 0:00

XS
SM
MD
LG