অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অবৈধ অভিবাসী তাড়াতে মালয়েশিয়া মরিয়া। দফায় দফায় অভিযান চলছে। সর্বশেষ অভিযানে ১৭২ জন বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মোস্তফা এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, আবদুর রউফ নামে একজন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যিনি বাংলা নামে সমধিক পরিচিত। তার বিরুদ্ধে মানব পাচারের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, পাচারকারীরা প্রথমে বিমানে করে ঢাকা থেকে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় নিয়ে আসে। সেখান থেকে মালাক্কা প্রণালীর এক জায়গায় এনে রাখা হয়। এর পর সুযোগ বুঝে মালয়েশিয়ায় ঢুকিয়ে দিয়ে তারা সটকে পড়ে।

দাতুক সেরি মোস্তফা জানান, গ্রেপ্তারকৃত বাংলাদেশীদের বয়স ২০ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে। তাদের কাছ থেকে ৪৮টি পাসপোর্ট ও ১৩ হাজার রিঙ্গিত উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কুয়ালালামপুরস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর সাইদুল ইসলাম বলেন, এটা তাদের রুটিন কাজেরই অংশ।

উল্লেখ্য, রি-হায়ারিং কর্মসূচির আওতায় ৫ লাখেরও বেশি অবৈধ বাংলাদেশি বৈধতা পাবার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। গত ৩১শে ডিসেম্বর এই কর্মসূচির মেয়াদ শেষ হয়েছে। সর্বশেষ খবর, এই কর্মসূচির আওতায় ৩০ শতাংশ ভিসা পেয়েছেন। নাম ও বয়স জটিলতার কারণে ১০ শতাংশ ভিসা পাননি। এই অবস্থায় বাদ বাকি বাংলাদেশিদের বৈধতার বিষয়টি কি হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে ৬ মাসের মধ্যে ভিসা সহ অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার সুযোগ দিয়েছে মালয়েশিয়ান সরকার। ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্ট

XS
SM
MD
LG