অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বির্তকিত চলচিত্র পদ্মাবতকে ঘিরে কার্ণি আন্দোলন প্রত্যাহার করা হল


গোটা ভারতেই বেশকিছু দিন ধরে চলা অশান্তির আবহে বির্তকিত চলচিত্র পদ্মাবতকে ঘিরে কার্ণি সেনার যাবতীয় প্রতিবাদ, বিক্ষোভ, আন্দোলন শেষ পর্যন্ত সেই কার্ণি সেনারাই প্রত্যাহার করে নিল। তাদের বক্তব্য, পদ্মাবত ছবিতে রাজপুতদের বীরত্ব তুলে ধরা হয়েছে অতএব আর প্রতিবাদ চালিয়ে যাওয়া অর্থহীন।

গত এক বছরের বেশি সময় ধরে চলচিত্র পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালীর এই ছবির বিরুদ্ধে হিংস্র আন্দোলন চালিয়েছে কার্ণি সেনা। পদ্মাবত ছবির তখন নাম ছিল পদ্মাবতী। মূলত তাদের চাপেই নাম পাল্টানো হয়েছে, গানের দৃশ্যায়নে আনতে হয়েছে পরিবর্তন। গত দুহাজার ষোলো সালের জানুয়ারি মাস থেকে শুরু হয় কার্ণি সেনার আন্দোলন, জয়পুরে সুট্যিং এর সেটে ঢুকে বনশালীকে চড় থাপ্পড় মারা হয়, ভাঙচুর করা হয় সেট। কার্ণি সেনার দাবি ছিল, ছবিতে পদ্মাবতী ও আলাউদ্দিন খিলজির মধ্যে রোমান্টিক স্বপ্ন দৃশ্য রয়েছে। নায়িকা দীপিকা পাড়ুকোন ও বনশালীকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়। ছবি মুক্তির পর ভাঙচুর করা হয় সিনেমা হল, ছোঁড়া হয় পেট্রোল বোমা।তাদের আন্দোলনের জেরে রাজস্থান, গুজরাত ও মধ্য প্রদেশের মাল্টিপ্লেক্সে ছবিটি মুক্তি পেতে পারেনি।

এবার, এতদিন পরে কার্ণি সেনা জানিয়েছে, তাদের কয়েকজন সদস্য জাতীয় সভাপতির নির্দেশে ছবিটি দেখেছেন, তাঁদের মনে হয়েছে, ছবিতে রাজপুতদের বীরত্ব উজ্জ্বল করে তুলে ধরা হয়েছে, প্রত্যেক রাজপুতই ছবিটি দেখে গর্বিত হবেন।চিঠি লিখে তাঁরা জানিয়েছেন, ছবিতে পদ্মাবতী-আলাউদ্দিনের মধ্যে কোনও আপত্তিকর দৃশ্য নেই, যাতে রাজপুতদের আবেগ আহত হতে পারে। অতএব আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেওয়া হল, উল্টে এবার রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাত সহ দেশের সব জায়গায় ছবিটি চলতে সাহায্যও করবেন তাঁরা।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:37 0:00

XS
SM
MD
LG