অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাশিয়া বর্তমান সঙ্কট দীর্ঘায়িত করবে বলে শঙ্কা প্রকাশ পশ্চিমা মিত্রদের 


রাশিয়ার সীমান্তে ইউক্রেনের শহর খারকিভে পাহারায় একজন নিরাপত্তা কর্মী। (ছবি- এএফপি)

ইউক্রেনের পশ্চিমা মিত্ররা গত সপ্তাহে রাশিয়ার একটি “আসন্ন” আক্রমণের বিষয়ে সতর্ক করছিলেন। তারপর, এই সপ্তাহের শুরুর দিকে সেই বার্তাটি পরিবর্তিত হয়ে আক্রমণের একটি “নিশ্চিত সম্ভাবনায়” রূপ নেয়। তবে এখন একটি ঐকমত্য তৈরি হতে শুরু করেছে যে, ক্রেমলিন নেটো ও কিয়েভকে আপাতত একটি উদ্বিগ্ন অবস্থায় ধরে রাখতে চায় এবং নিকট ভবিষ্যতে অস্ত্রের মুখে হুমকির সম্মুখীন করে রাখার কৌশলটি বজায় রাখার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস ‍বৃহস্পতিবার সতর্ক করেছেন যে, রাশিয়া হয়ত ইউক্রেনের সীমান্তে সৃষ্ট অচলাবস্থাটি কয়েক মাস দীর্ঘায়িত করতে পারে। এর মাধ্যমে তারা পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্কল্প এবং ইউক্রেনের সহনশীলতা পরীক্ষা করবে, যার উদ্দেশ্য হল তাদের নিরাপত্তা বিষয়ক দাবিগুলোতে রাজি করানো এবং পশ্চিমা জোটকে বিচলিত করা।

তার এমন মূল্যায়ন ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের দীর্ঘ সময় ধরে করা যুক্তির সাথে মিলে যায়। তাদের যুক্তি ছিল যে, ক্রেমলিনের অনেক কয়টি মিশ্র-যুদ্ধ কৌশল রয়েছে এবং তারা বিরক্তি ও ভয়ভীতির বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে সঙ্কটটিকে দীর্ঘায়িত করবে।

তবে, আক্রমণের শঙ্কাটি বাদ দিলেও নেটো মিত্ররা কোন ধরনের ঝুঁকি নিচ্ছে না। বরং, জোটটির মধ্য ইউরোপীয় ও বল্টিক সদস্যদের মনোবল বৃদ্ধি করতে, পূর্ব ইউরোপে আরও ট্যাঙ্ক ও যুদ্ধবিমান প্রেরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করছে। নেটো মহাসচিব ইয়েন্স স্টলটেনবার্গ বুধবার বলেন, “আমরা সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত রয়েছি।”

এই সপ্তাহের মধ্যভাগে ইউক্রেনে একটি সাইবার আক্রমণের পর, দেশটির পশ্চিমা মিত্ররা সেখানকার সাইবার প্রতিরক্ষা আরও জোরদার করার বিষয়েও দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ হয়েছেন। ইউক্রেন সাইবার আক্রমণটির জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ওয়েব পোর্টালকে লক্ষ্য করে আক্রমণটি চালানো হয়। এছাড়াও আক্রমণটিতে দেশটির বৃহত্তম প্রাইভেট ব্যাংক, রাষ্ট্রমালিকানাধীন অন্য আরেকটি ব্যাংক এবং বিদ্যুৎ পরিকাঠামোও প্রভাবিত হয়।

XS
SM
MD
LG