অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আমাদের অগ্রাধিকার ভারতীয়দের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনা: জয়শঙ্কর


নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। ছবি: রয়টার্স

একজন প্রশ্ন করেন, তালিবানের সঙ্গে ভারতের কোনও যোগাযোগ হচ্ছে কিনা। বিদেশমন্ত্রী বলেন, "এই মুহূর্তে পরিস্থিতির দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। ক্রমশই পাল্টাচ্ছে। আমরা লক্ষ্য রাখছি। অবশ্যই তালিবান ও তাদের যে প্রতিনিধিরা কাবুলে এসেছেন, আমরা তাঁদের সঙ্গে অবস্থা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।"

আফগানিস্তানে শান্তি রক্ষার উপায় সম্পর্কে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, "আফগানিস্তানে একটা নতুন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অন্যান্যদের মতো আমরাও সেই পরিবর্তিত পরিস্থিতির ওপর অত্যন্ত সতর্ক দৃষ্টি রাখছি। এই মুহূর্তে আমাদের অগ্রাধিকার যুদ্ধ বিধ্বস্ত ওই দেশের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা এবং ওখানে নানা জায়গায় আটকে থাকা ভারতীয়দের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনা।"

আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি ভিত্তিতে আলোচনার জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে যোগ দিতে জয়শঙ্কর গত সোমবার নিউইয়র্ক গিয়েছেন। আগামীকাল শুক্রবার তিনি দেশে ফিরে আসবেন।

এর মধ্যে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ছাড়াও জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুয়েতেরেসের সঙ্গে তিনি আফগান পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন। অন্যান্য দেশের বিদেশমন্ত্রীদের সঙ্গেও তাঁর কথা হয়েছে।

মাত্র ক'দিন আগেই তাঁর সরকারের নীতি অনুযায়ী জয়শঙ্কর বলেছিলেন, আফগানিস্তান থেকে সব হিন্দু ও শিখকে ভারতে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। দেশে বিদেশে এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনার প্রেক্ষিতে এই দিন তিনি বলেন, ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে আনা তো আমাদের অবশ্যই কর্তব্য, এ ছাড়াও বন্ধু স্থানীয় যে সব আফগান আমাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সেখানে নানারকম উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন, সব সময় পাশে ছিলেন, তাঁদেরও এখন সাহায্য দরকার। আমরা চেষ্টা করছি তাঁদের জন্য যতটা সম্ভব সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার।

সাংবাদিকরা তাঁর কাছে জানতে চান, ভারত আফগানিস্তানে যে বিপুল পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করেছে, নানা রকম পরিকাঠামো নির্মানের জন্য অর্থ ব্যয় করেছে, তার কী হবে। উত্তরে জয়শঙ্কর বলেন, "আপনারা যাকে বিনিয়োগ বলছেন, আমরা সেটাকে দেখি দুই দেশের জনগণের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক হিসেবে। আমার মনে হয়, সেই সম্পর্ক অবশ্যই এগিয়ে যাবে এবং তার ভিত্তিতেই আফগানিস্তানে আগামী দিনগুলোতে আমরা কাজ করব।"

আর একজন প্রশ্ন করেন, তালিবানের সঙ্গে ভারতের কোনও যোগাযোগ হচ্ছে কিনা। বিদেশমন্ত্রী বলেন, "এই মুহূর্তে পরিস্থিতির দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। ক্রমশই পাল্টাচ্ছে। আমরা লক্ষ্য রাখছি। অবশ্যই তালিবান ও তাদের যে প্রতিনিধিরা কাবুলে এসেছেন, আমরা তাঁদের সঙ্গে অবস্থা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।" ভারত-আফগানিস্তান বাণিজ্যিক সম্পর্ক যাতে বন্ধ না হয় তারও চেষ্টা করা হবে বলে জয়শঙ্কর ইঙ্গিত দিয়েছেন। তালিবান রাজধানী কাবুল দখল করার পরেই কার্যত ভারতের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

XS
SM
MD
LG