অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগান বাহিনীর জন্য যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাবিত ব্যয়-বরাদ্দ বৃদ্ধি করলো


Biden Afghanistan withdrawal

যুক্তরাষ্ট্র আশা করছে যে, আফগানিস্তানের মাটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যদের অনুপস্থিতিতে আরও অর্থ প্রদান দেশটিকে সহায়তা দেবে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শুক্রবার ২০২২ অর্থ বছরের জন্য ৭১ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের প্রতিরক্ষা বাজেটের প্রস্তাব উত্থাপন করেন, যার মধ্যে ৩ শ’ ৩০ কোটি ডলার আফগান বাহিনীর জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। এই প্রস্তাব হচ্ছে এই বিগত বছরের বরাদ্দের চাইতে ৩০ কোটি ডলার বেশি। কংগ্রেসের অনুমোদন পেলে, আফগান জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বাহিনীর ৩,৫২,০০০ সদস্যের জন্য সাজসরঞ্জাম এবং প্রশিক্ষণের প্রয়োজন মেটাতে পারবে তেমনি অবকাঠামোতেও অর্থায়ন হবে। পেন্টাগনে প্রতিরক্ষা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত আন্ডার সেক্রেটারি ও প্রধান অর্থ কর্মকর্তা অ্যান ম্যাকঅ্যান্ড্রু সংবাদদাতাদের বলেন, “আমরা মনে করি আমরা যখন আফগানিস্তান থেকে বেরিয়ে আসছি, আমাদেরকে সেখানকার বাহিনীকে নিরাপত্তার বিষয়ে বাড়তি কিছু সহায়তা দেওয়া প্রয়োজন। সামরিক পরিকল্পনাকারীরা আফগানিস্তানে তাঁদের কথায়, “প্রত্যক্ষ যুদ্ধের খরচ মেটাতে ৮৯০ কোটি ডলার বরাদ্দ চাইছেন যা গত বছরের চাইতে ৪০০ কোটি ডলার কম।

সামরিক সহায়তা ছাড়াও, আফগানিস্তান পররাষ্ট্র দপ্তর থেকেও আরও অর্থ পাবে। শুক্রবার পররাষ্ট্র বিভাগ বলেছে যে, ২০২২ অর্থবছরের জন্য তাদের প্রস্তাবিত বাজেটে আঠফগানিস্তানের জন্য ৩৬ কোটি ডলার রয়েছে, যা কীনা গত বছরের তূলনায় তিন কোটি চল্লিশ লক্ষ ডলার বেশি। এর লক্ষ্য হচ্ছে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায়, মাদক দ্রব্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এবং নারীর অধিকার রক্ষায় সাহায্য করা।

যুক্তরাষ্ট্রের কুটনৈতিক ও প্রতিরক্ষা কর্মকর্তারা আশা করছেন যে, আফগান সরকার টিকে থাকবে এবং গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে স্বাক্ষরিত চুক্তি তালিবান মেনে চলবে। ঐ চুক্তিতে তালিবান প্রতিশ্রুতি দেয় যে, যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী সেখান থেকে সরে আসলে সে দেশ ভবিষ্যতে কোন সন্ত্রাসী হামলার উৎস হবে না। আফগানিস্তানে আপোষ রফা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত জালমে খলিলজাদ বলেছেন, তালিবান কর্মকর্তারা তাঁকে আশ্বস্ত করেছেন যে তাঁরাও স্বভাবিক অবস্থা চান।

XS
SM
MD
LG