অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মুসলমান যাত্রীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ বিষয়ক নির্বাহী আদেশ নিয়ে এ্যাটর্নী মইন চৌধুরীর বিশ্লেষণ


সাতটি মুসলমান প্রধান দেশের যাত্রীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জারি করা প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের ওপর এক নিম্ন আদালতের সাময়িক নিষেধাজ্ঞা ফেডারেল আপীল আদালত বলবৎ রাখার রায় দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে কথা বলছেন নিউইয়র্ক প্রবাসী অভিবাসন আইনজীবি- এ্যাটর্নী মইন চৌধুরী।

আপিল আদালত প্যানেল বলেছে সরকার যে আপীল করেছে তার পক্ষে তেমন ভালো যুক্তি নেই।

সান ফ্রান্সিসকো নাইনথ সার্কিট আদালতের তিনজন বিচারকের একটি প্যানেল একমত হয়ে নিম্ন আদালত কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্রে যাত্রী প্রবেশ নিষেধাজ্ঞার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির আদেশ বহাল রাখার নির্দেশ দেন।

আাদালত ওই সিদ্ধান্ত ঘোষণার সামান্য পরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইটারে লেখেন, “আদালতে দেখা হবে; আমাদের দেশের নিরাপত্তা হুমকীর মুখে”।

পরে হোয়াইট হাউজে তিনি সাংবাদিকদের বলেন আদালত একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত দিয়েছে এবং এতে করে জাতীয় নিরাপত্তা হুমকীর মুখে পড়লো।

“আমরা এমন এক অবস্থায় পড়েছি যাতে আমাদের দেশের জাতীয় নিরাপত্তা ভয়ানক হুমকীর মুখে পড়েছে। আদালতে দেখা হবে। আমরা এই মামলা জিতবো”।

সিয়াটলে এক সংবাদ সম্মেললনে ওয়াশিংটন ষ্টেটের এ্যাটর্নী জেনারেল বব ফার্গুসন এ্যাপিলেট আদালতের রায়কে সংবিধানের পক্ষের বিজয় আখ্যা দেন।

“আমাদের দেশটি আইনের দেশ। আর এই আইন সবার জন্যে। যার মধ্যে পড়েন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টও”।

তবে ওই নির্বাহী আদেশ, নিম্ন আদালতের নিষেধাজ্ঞা, সার্কিট আদালতে তা আপিল ও বলবৎ রাখার নির্দেশ এবং নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ; এ সবেরই পক্ষশে বিপক্ষে মতামত বিভিন্ন মানুষের।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে; বড় বড় বিমান বন্দরে এখনো অব্যাহত রয়েছে প্রতিবাদ। আর এর সমাপ্তি ঘটবে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের মধ্যে দিয়ে।

XS
SM
MD
LG