অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ঢাকা লাল, লকডাউনের বিকল্প নেই


করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারের পরিকল্পনা নিয়ে চলা রাজনৈতিক বিতর্কের মধ্যে বিশেষজ্ঞরাও যোগ দিয়েছেন। তারা বলছেন, এতে করে সংক্রমণ আরও বাড়বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় কাজ করেছেন এমন একজন বিশেষজ্ঞ বলেছেন, সবকিছু খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হঠকারি। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকা যেখানে হটস্পট সেখানে ঢাকায় সবকিছু ওপেন করাটা দেশের জন্য মস্তবড় বিপদ ডেকে আনবে। ঢাকার চেহারা বদলে গেছে। ফিরে গেছে ৬৬ দিন আগের চেহারায়। গাড়ি-ঘোড়া, যানবাহনে ঠাঁসা। বাসে ওঠার জন্য মারামারি হচ্ছে। লঞ্চে গাদাগাদি অবস্থা। ট্রেন চলছে আপন গতিতে। আভ্যন্তরীণ রুটে বিমানও উড়ছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত। কোথাও এর কোন বালাই নেই। বিরোধীরা আগেভাগেই নয়া বিপদের আশঙ্কা করেছিলেন সরকার বলছে এর বিকল্প নেই। দীর্ঘদিন মানুষজনকে ঘরে আটকে রাখা যাবেনা। অর্থনীতি একদমই ভেঙ্গে পড়বে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের সাবেক উপদেষ্টা ড. মোজাহেরুল হক এই সংবাদদাতাকে বলেন, কাল বিলম্ব না করে ঢাকাকে সম্পূর্ণ লকডাউন করতে হবে।

ড. মোজাহেরুল হক বলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনেক আগেই বাংলাদেশকে করোনা মোকাবিলায় খারাপ দেশগুলোর পাশাপাশি দাঁড় করিয়েছিল। সময় যত যাচ্ছে নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে যাচ্ছে সবকিছু। যেমন পোনা মাছ পুকুরে ছেড়ে দেয়ার পর এগুলো আর ধরা যায়না। এখন সারাদেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেয়ার পর ধরবেন কিভাবে?

ওদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৮১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই সময়ে মারা গেছেন ২২ জন। সিলেট বিভাগে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ছাড়ালো। ফেনীতে আরও পাঁচ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নেত্রকোনায় আট ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ২০ জনের করোনা শনাক্ত। গত ২৪ ঘণ্টায় মৌলভীবাজারে ১০০ জন শনাক্ত হয়েছেন। সিলেটের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ময়মনসিংহ জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, সচিবালয়ে এক সঙ্গে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ কর্মী কাজ করতে পারবেন।

ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর প্রতিবেদন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:23 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG