অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীনের কাছ থেকে আরও ৬ কোটি ডোজ টিকা আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ


একজন নার্স করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন সিনোফার্মের একটি বাক্স ধরে আছেন। ১৫ এপ্রিল, ২০২১।

বাংলাদেশ সরকার চীনের প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের কাছ থেকে অতিরিক্ত ৬ কোটি ডোজ করোনা ভাইরাসের টিকা আমদানির উদ্যোগ নিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক শনিবার ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা ডেডিকেটেড ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন কালে এ তথ্য জানিয়ে বলেন এ বিষয়ে একটি চুক্তি করা হবে। তিনি বলেন অক্টোবর মাসে আসবে দুই কোটি ডোজ, নভেম্বর মাসে আসবে দুই কোটি ডোজ এবং বাকি টিকা পর্যায়ক্রমে আসবে। চীনের সাথে এর আগে যে দেড় কোটি ডোজ টিকার চুক্তি হয়েছিল এরইমধ্যে তারা সে টিকা পাঠানো শুরু করেছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন করোনা ভাইরাসের মোকাবেলায় দেশের মানুষকে টিকা দিতে সরকার টিকা আমদানির জন্য প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছে। পৃথিবীব্যাপীই টিকার সংকট রয়েছে বলে উল্লেখ করে জাহিদ মালেক বলেন এমন কোনও দেশ নাই যেখানে সরকার টিকার সন্ধান করছে না।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন দেশে করোনা সংক্রমণ দিনদিন খারাপ হচ্ছে যার ফলে দেশের স্বাস্থ্য সেবা খাতের ওপর চাপ বাড়ছে। তিনি বলেন হাসপাতালগুলোতে স্থান সংকুলান করা ক্রমশই কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। এখন করোনা চিকিৎসার পাশাপাশি ডেঙ্গু চিকিৎসাও করতে হচ্ছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন।

জাহিদ মালেক করোনার সংক্রমণ কমানোর জন্য দেশের মানুষকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বলেন বর্তমান ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণকে নিয়ন্ত্রণে আনতে দেশের সকল নাগরিককে সহযোগিতা করতে হবে। তিনি বলেন হাসপাতালের শয্যা বাড়িয়ে আর ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন করে করোনা সংক্রমণ রোধ করা যাবেনা, জনগণকেও এ কাজে এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে, উপহার হিসেবে ভারত সরকারের পাঠানো আইসিইউ সুবিধা সম্বলিত ৩০টি অ্যাম্বুলেন্স আজ বাংলাদেশের বেনাপোল স্থলবন্দরে পৌঁছেছে। বেনাপোল স্থল বন্দরের কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তারা সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

ভারতের দেয়া উপহার ৩০টি এ্যাম্বুলেন্স।
ভারতের দেয়া উপহার ৩০টি এ্যাম্বুলেন্স।

চলতি বছরে মার্চ মাসে বাংলাদেশ সফরকালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সরকারকে ১০৯টি অ্যাম্বুলেন্স উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন এবং তারই অংশ হিসেবে প্রথম চালানে ৩০টি অ্যাম্বুলেন্স বেনাপোল বন্দরে পৌঁছেছে বলে উল্লেখ করে ঢাকায় অবস্থিত ভারতীয় হাই কমিশন জানিয়েছে বাকি অ্যাম্বুলেন্সগুলো সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে পর্যায়ক্রমে আসবে ।

XS
SM
MD
LG