অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দুর্নীতিবাজদের ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারো বলেছেন, চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে। তাঁর ভাষায়- দুর্নীতিবাজ যেই হোক, যত শক্তিশালীই হোক না কেন তাদের ছাড় দেয়া হবে না। সরকারের এক বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এই হুঁশিয়ারি দেন। সাধারণ মানুষের হক যাতে কেউ কেড়ে নিতে না পারে তা নিশ্চিত করার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করে জনগণের রায়ই হচ্ছে ক্ষমতার পালা বদলের একমাত্র উপায়। তাই যে কোন শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে সরকার স্বাগত জানায়। তবে অযৌক্তিক দাবিতে ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডকে কখনো বরদাশত করা হবে না। অতীতে আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি-সন্ত্রাস ও মানুষকে হত্যা করা দেশবাসী দেখেছেন। বাংলাদেশের মাটিতে এ ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড চলতে দেয়া হবে না।

বিগত এক বছরে সরকার কতটুকু সফল হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব ক্ষেত্রে সফল হয়েছি এটা দাবি করবো না। তবে এটা বলতে পারি, আমাদের কোন ত্রুটি ছিল না। দু’একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিকভাবে প্রশাসনিক ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যদিও কোন কোন মহল গুজব ছড়িয়ে ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০-২১ সালকে মুজিববর্ষ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এই উদযাপন শুধু আনুষ্ঠানিকতা সর্বস্ব নয়। এই উদযাপনের লক্ষ্য হচ্ছে, জাতির জীবনে নতুন জীবনীশক্তি সঞ্চারিত করা।

রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, দ্বিপাক্ষিক উপায়ে এই সমস্যার সমাধান চাওয়ার মধ্যে দুর্বলতা ভাবার কারণ নেই। এটা একটি কৌশল। মিয়ানমার যত উস্কানিই দিক না কেন আমরা তাতে পা দেব না। আন্তর্জাতিক ন্যায় বিচার আদালতে মামলা হয়েছে। আশা করছি, এই আদালত থেকে একটি স্থায়ী সমাধানসূত্র খুঁজে পাওয়া যাবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন মজবুত ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত। অর্থনৈতিক অগ্রগতির সূচকে শীর্ষ ৫টি দেশের একটি এখন বাংলাদেশ।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:12 0:00
সরাসরি লিংক



XS
SM
MD
LG