অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্টের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে কেরল


ভারতে প্রথম রাজ্য হিসেবে সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট বা সিএএ-র বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল কেরল। রাজ্যের দাবি, এই আইন অসাংবিধানিক, তাই অবিলম্বে এটিকে বাতিল করা উচিত। এর আগেও বিভিন্ন ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করেছে। ইতোমধ্যেই ৬০টিরও বেশি পিটিশন জমা পড়েছে সুপ্রিম কোর্টে। তবে এই প্রথম কোন রাজ্য সরকার এই আইনের বিরুদ্ধে আদালতে গেল।

কেরলের বাম নেতৃত্বাধীন সরকার দেশের শীর্ষ আদালতে জানিয়েছে নতুন এই আইন সংবিধানের একাধিক ধারাকে লঙ্ঘন করে। যার মধ্যে রয়েছে প্রত্যেক মানুষের সমান অধিকারের স্বীকৃতি। এছাড়া দেশের ধর্মনিরপেক্ষতাও এই আইনের ফলে বেশ কিছুটা ধাক্কা খেয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে। পাশাপাশি ২০১৫ সালের পাসপোর্ট আইনে আনা বদল এবং ফরেনার্স অ্যামেন্ডমেন্ট অর্ডারের বৈধতাকেও চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে কেরলের পিনারাই বিজয়নের সরকার।

উল্লেখ করা যেতে পারে, গত বছরের ডিসেম্বরে কেরল বিধানসভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিএএ বাতিলের প্রস্তাব পাশ করিয়ে নিয়েছিল পিনারাই বিজয়নের সরকার। মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন বলেছিলেন, আমাদের রাজ্যে ডিটেনশন ক্যাম্প করতে দেব না। শুরু থেকেই এ রাজ্যে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ বাস করেন। ধর্মনিরপেক্ষতার একটা নিদর্শন এই রাজ্য। এটা আমাদের ঐতিহ্য। যা আমরা কখনই নষ্ট হতে দেব না। পাশাপাশি ক্ষোভের সুরে তিনি জানিয়েছিলেন, সিএএ-র মাধ্যমে নাগরিকদের মৌলিক অধিকার খর্ব করার চেষ্টা করা হচ্ছে। ফলে অবিলম্বে সিএএ-কে অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হোক। সর্বোচ্চ আদালতে আজ এই আর্জিই জানিয়েছে কেরলের বাম সরকার বলে জানা গেছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:48 0:00


XS
SM
MD
LG