অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অং সান সুচি গণহত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগগুলো অগ্রাহ্য করেছেন


মিয়ানমারকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে গণহত্যার জন্য অভিযোগকারি গাম্বিয়াকে প্রতিনিধিত্ব করছেন এমন একজন কৌঁসুলি আজ বলেছেন যে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচি গতকাল জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতের কাছে দেয়া বিবাদি পক্ষ হিসেবে তাঁর ভাষণে গণহত্যা এবং ধর্ষণের অভিযোগগুলো অগ্রাহ্য করেছেন।

পল রাইকলার দ্য হেগ শহরে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতকে বলেন মিয়ানমার যৌন সহিংসতার অভিযোগ অগ্রাহ্য করছে কারণ এটি অনস্বীকার্য এবং বলার মতো নয়।

অং সান সুচি গতকাল ঐ আদালতকে বলেন যে রোহিঙ্গা সংখ্যালঘুরা যে বিপুল সংখ্যায় সে দেশ ত্যাগ করছিল, তার উৎপত্তি হয়েছিল অভ্যন্তরীণ সংঘাতের কারণে যা শুরু হয়েছিল সমন্বিত এবং সামগ্রিক সশস্ত্র আক্রমণের মধ্য দিয়ে।

তিনি বলেন যে, মিয়ানমারের প্রতিরক্ষা বিভাগ এই আক্রমণের পাল্টা জবাব দিয়েছে এবং এতে যে সশস্ত্র সংঘাত হয়েছে তার কারণেই কয়েক লক্ষ মুসলমান সে দেশ ত্যাগ করেছে।

মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর ভূমিকায় আদালতে হাজির হয়ে তিনি তাঁর সরকারের এই দাবি পুনর্ব্যক্ত করেন যে সেনাবাহিনী কেবল মাত্র রোহিঙ্গা জঙ্গিদের লক্ষ্য করে অভিযান চালাচ্ছিল যারা ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে পশ্চিমের রাখাইন রাজ্যে নিরাপত্তা চৌকিগুলোতে হামলা চালিয়েছিল।

ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি‘র ৫৭ টি সদস্য রাষ্ট্রের পক্ষে গাম্বিয়া আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে এই মামলা করে।

গাম্বিয়ার বিচার মন্ত্রী মঙ্গলবার সংবাদদাতাদের বলেন তিনি চান যে এই আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালত, গণহত্যা মামলার পূর্ণ শুনানী না হওয়া পর্যন্ত , রোহিঙ্গাদের সুরক্ষার জন্য বিশেষ পদক্ষেপের আদেশ দেয়। কয়েক সপ্তার মধ্যেই রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা প্রদানের ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার পক্ষে আদালত রায় দিতে পারে।

XS
SM
MD
LG